১৫ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং পুলিশকে অস্ত্র পকেটে রাখার জন্য দেয়া হয়নি, অপরাধী দমনের জন্য : প্রধানমন্ত্রী
Mountain View

পুলিশকে অস্ত্র পকেটে রাখার জন্য দেয়া হয়নি, অপরাধী দমনের জন্য : প্রধানমন্ত্রী

0
image_pdfimage_print

নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বৈশাখের আয়োজন দেখে এখন অনেক ভালো লাগে। আগে মানুষ বলতো মুসলমানের লাল পাড় শাড়ি পড়া যাবে না, এটা নাকি হিন্দুয়ানি হয়ে যায়। তবে এই ধারণা এখন অনেক পাল্টে গেছে। এর বেশি কিছু আমি বলতে চাই না, বুদ্ধিমানের জন্য ইশারাই যথেষ্ট।

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে বুধবার সকালে গণভবনে সাংবাদিকদ ও কলামিস্টদের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এর আগে পয়লা বৈশাখে বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছিল। এ ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি যেন না ঘটে সেজন্য আমাদের সবাইকে সজাগ থাকতে হবে, প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

ক্রসফায়ার নিয়ে আন্তর্জাতিক ও জাতীয় মানবাধিকার সংস্থাগুলোর সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পুলিশ যা করছে আইনের মধ্যে করছে। তাদের সেভাবে বলা আছে। পুলিশকে অস্ত্র পকেটে রাখার জন্য দেয়া হয়নি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “স্বাধীনতার ৪৫ বছরে আমাদের যতটুকু এগোনোর কথা ততটুকু এগোতে পারিনি। আমরা পিছিয়েছি। কারণ যুদ্ধের মাধ্যমে বিজয় অর্জন করার পর এক পক্ষ ষড়যন্ত্র করে। তারা পঁচাত্তরে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে দেশকে পিছিয়ে দিয়েছে। পঁচাত্তরের পর কেবল দেশ পিছিয়েছে। একের পর এক ষড়যন্ত্র হয়েছে। একের পর এক ক্যু হয়েছে।”

লিবিয়ার গাদ্দাফি, ইরাকের সাদ্দাম, আল-কায়েদার লাদেনের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাদের কারা সৃষ্টি করেছে, কীভাবে মারা হয়েছে তা মানুষ জানে। অন্য দেশের চোখে অপরাধী সাদ্দাম-লাদেন-গাদ্দাফীর বিচার হলে এদেশের ভয়ংকর অপরাধীর বিচার হলে প্রশ্ন কেন।”

পশ্চিমা দেশ ও মানবাধিকার সংস্থাগুলোর সমালোচনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “নিরপরাধ মানুষ মারা গেলে তাদের জন্য দুঃখ হয় না; যারা অপরাধী তারা কেন মারা গেল, তা নিয়ে তাদের দুঃখ।”

শেখ হাসিনা প্রশ্ন রেখে বলেন, একজন অপরাধীকে মেরে ৫০টা মানুষ বাঁচানো ভালো, নাকি একজন অপরাধীর জন্য ৫০ জন মানুষ মরা ভালো। অপরাধীরা মানুষ হত্যা করবে, আগুনে পুড়ে মারবে, আর সবাই বসে বেসে দেখবে, তা তো হবে না।

পুলিশকে অপরাধী দমনে নির্দেশ দেয়া হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “ক্রসফায়ারে মানুষ মরলে মানবাধিকার নিয়ে কথা বলা হয়। পুলিশ তো আইনের মধ্যে সব করছে। আমরা সেভাবেই নির্দেশ দিয়েছি। অস্ত্র তো পকেটে রাখার জন্য না, অপরাধী দমনের জন্য।”

নিউজবিডি৭১/আর কে/১৫ এপ্রিল ২০১৫

Share.

Leave A Reply