[english_date] এফ আর টাওয়ারে ধোঁয়ায় শ্বাস বন্ধ হয়ে মারা গেছেন অধিকাংশরা
Mountain View

এফ আর টাওয়ারে ধোঁয়ায় শ্বাস বন্ধ হয়ে মারা গেছেন অধিকাংশরা

0

নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা :
বনানীর ২২ তলা বাণিজ্যিক ভবন এফ আর টাওয়ারে ১৯টি প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম ছিলো। প্রাথমিক এই তালিকা করেছে পুলিশ। এরমধ্যে আগুনে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সাত থেকে দশম পর্যন্ত চারটি তলা। নিহত ২৫জনের মধ্যে বেশিরভাগই কালো ধোঁয়ায় দম বন্ধ হয়ে মারা যান বলে জানিয়েছেন, তাদের সহকর্মীরা। ভবনটিতে প্রায় এক হাজার মানুষ কাজ করলেও আগুন লাগার সময় অর্ধেক মানুষ নানা কাজে ভবনের বাইরে ছিলেন বলেও জানান তারা।

বৃহস্পতিবারের ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত বনানীর বহুতল বাণিজ্যিক ভবন এফ আর টাওয়ারের বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সাত থেকে দশ তলা পর্যন্ত। দশম তলার দুই পাশের অংশই পুড়ে গেছে।

পুলিশের দেয়া তথ্য অনুযায়ী ভবনটির বিভিন্ন তলায় ১৯টি প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম ছিলো। ১০ম তলায় রয়েছে হেরিটেজ এয়ার এক্সপ্রেস লিমিটেড এর অফিস। প্রতিষ্ঠানটির সিনিয়র অফিসার রুহুল আমিন জানান, তাদের প্রতিষ্ঠানের মোট ১০ জন মারা গেছেন। নিহতদের তালিকায় তাদের সবারই নাম রয়েছে।

এর মধ্যে ১১তলায় কাজ করতেন ইওর গ্রুপের অর্থ বিভাগের সহকারী ব্যবস্থাপক রুহুল আমিন। তার সাথে কথা বলে জানা যায় তাদের প্রতিষ্ঠানের মোট ৮৭ জন কাজ করতেন। এর মধ্যে ৫জন মারা গেছেন। যাদের নাম ২৬ জনের তালিকায় রয়েছে। আহতরা বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন। কেউ নিখোঁজ নেই।

ভবনটির তৃতীয়, ১২, ১৩, ১৬ ও ১৯ তলায় ছিলো ডার্ড গ্র“পের কার্যক্রম। এই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত ছিলেন প্রায় দুইশ জন। প্রতিষ্ঠানটির এক কর্মকর্তা জানান, তাদের কেউই নিহত বা নিখোঁজ হননি। আগুন লাগার পর তারা ছাদে উঠে পাশের ভবনের ছাদে নেমেছেন।

যারা মারা গেছেন, এদের মধ্যে কয়েকজন আগুনে পুড়লেও বেশিরভাগের মরদেহ অবিকৃত ছিল বলে জানান, তাদের সহকর্মীরা। ধোঁয়ার কারণেই শ্বাস বন্ধ হয়ে তারা মারা গেছেন বলে ধারনা তাদের।

এফ আর টাওয়ারে ধোঁয়া চুসে নেয়ার আধুনিক প্রযুক্তি ও জরুরি পথ না থাকায় মৃতের সংখ্যা বেড়েছে বলে মনে করেন তদন্ত কর্মকর্তারা।

নিউজবিডি৭১/এম কে/ ৩০ মার্চ ২০১৯

Share.

Comments are closed.