১৬ই আগস্ট, ২০১৮ ইং মান্দেব দিয়ে তেল রপ্তানি শুরু সৌদির
Mountain View

মান্দেব দিয়ে তেল রপ্তানি শুরু সৌদির

0
image_pdfimage_print

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : বাবেল মান্দেব দিয়ে তেল রপ্তানি পুনরায় চালু করার ঘোষণা দিয়েছে সৌদি আরবের সবচেয়ে বড় তেল কোম্পানি আরামকো।

শনিবার এক বিবৃতিতে বাবেল মান্দেব দিয়ে পুনরায় তেল রপ্তানির ঘোষণা দেয় আরামকো।

বিবৃতিতে বলা হয়, কোম্পানির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঞ্জস্যতা রেখে, বর্তমান পরিস্থিতির মূল্যায়ন, গ্রাহকদের কাছে তেল সরবরাহ এবং নিরাপত্তা পরিস্থিতির উন্নতির জন্য যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ট্যাঙ্কার ও ক্রুদের নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়।

শনিবার শক্তি, শিল্প ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রী খালিদ আল ফালিহও বাবেল মান্দেব দিয়ে তেল রপ্তানি পুনরায় চালু করার ঘোষণা দেন। সৌদি সংবাদ সংস্থা এ খবর দিয়েছে। নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ না থাকায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন খালিদ ফালিহ।

গত মাসের ২৬ জুলাই নিরাপত্তা ইস্যুতে বাবেল মান্দেব প্রণালী দিয়ে অপরিশোধিত তেলবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ করে সৌদি আরব।

সেসময় খালিদ ফালিহ জানান, সৌদির জাতীয় জাহাজ কোম্পানির দুটি বড় জাহাজ বাবেল মান্দেব পাড়ি দিয়েছিলো। দুই জাহাজের প্রত্যেকটিতে ছিলো দুই মিলিয়ন ব্যারেল অপরিশোধিত তেল। জাহাজ দুটি লোহিত সাগরে পৌঁছলে তাতে হামলা করে ইয়েমেনের হুথি বিদ্রোহীরা।

তিনি জানান, সৌদি আরব নিরাপত্তা ইস্যুতে তাৎক্ষণিকভাবে বাবেল মান্দেব দিয়ে তেলবাহী জাহাজ চলাচল সাময়িক বন্ধ করেছে। সম্পূর্ণ নিরাপদ না হওয়া পর্যন্ত এই চ্যানেল দিয়ে জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকবে।

সৌদির তেল কোম্পানি আরামকো জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের ঘোষণা অনুযায়ী জানিয়েছিলো, তেলবাহী ট্যাঙ্কার, ক্রু এবং অপরিশোধিত তেলবাহী জাহাজসহ সংশ্লিষ্ট সকলকিছুর নিরাপত্তার খাতিরে বাবেল মান্দেব চ্যানেল দিয়ে জাহাজ চলাচল বন্ধ করা হয়েছে। সম্পূর্ণ নিরাপদ না হওয়া পর্যন্ত এটি কার্যকর থাকবে।

বাবেল মান্দেব লোহিত সাগর ও সুয়েজ খাল হয়ে ভারত মহাসাগর ও ভূমধ্যসাগরের মধ্যে একটি কৌশলগত গুরুত্বপূর্ণ সংযোগ হিসেবে কাজ করে। ২০০৬ সালে এ প্রণালীটি দিয়ে প্রতিদিন গড়ে ৩.৩ মিলিয়ন ব্যারেল তেল বহন করা হয় যেখানে সমগ্র বিশ্বে তেলবহনকারী ট্যাঙ্কারের মাধ্যমে বহন করা হয় গড়ে ৪৩ মিলিয়ন ব্যারেল তেল।

নিউজবিডি৭১/এম কে/আগস্ট ৬ , ২০১৮

Share.

Comments are closed.