[english_date] ভোলার মেঘনা নদীর ডেঞ্জার জোনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে চলছে ঝূঁকিপূর্ন নৌযান
Mountain View

ভোলার মেঘনা নদীর ডেঞ্জার জোনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে চলছে ঝূঁকিপূর্ন নৌযান

0

নিউজবিডি৭১ডটকম
ভোলা : ভোলা থেকে বিভিন্ন রুটে নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে মেঘনা নদীর ডেঞ্জার জোনে চলছে ঝূঁকিপূর্ন নৌযান। প্রতিদিন এসব রুট দিয়ে জীবনের ঝূঁকি উত্তাল মেঘনা পাড়ি দিচ্ছেন হাজার মানুষ।

ঝূঁকিপূর্ন পারাপারে কারনে নৌ দুর্ঘটনা আশংকা থাকলেও স্থানীয় প্রশাসন অবৈধ নৌযান বন্ধ করতে পারছে না।

যারফলে নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করেই উত্তাল মেঘনা নদীতে যাত্রী পারাপার করছে ছোট ছোট ট্রলার ও লঞ্চে করে। এতে করে যে কোন সময় বড় ধরনের নৌ দুর্ঘটনার আশংকা রয়েছে।

সরকারি নিয়ম অনুযায়ী মার্চ থেকে অক্টোবর পর্যান্ত ৮ মাস ভোলার মেঘনার ১৯০ কিলোমিটার এলাকাকে ডেঞ্জারজোন হিসেবে চিহ্নিত করা রয়েছে।সি সার্ভে ছাড়া সকল ধরনের অনিরাপদ নৌ যান চলাচলে নিশেধাজ্ঞাজারী রয়েছে।

এই নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ভোলা জেলার উপকূলের বিভিন্ন এলাকায় দিয়ে চলছে ফিটনেস ও অনুমোদনবিহীন ছোট ছোট লঞ্চ ও ইঞ্জিন চালিত ট্রলার।দু’একটি রুটে সি-ট্রাক কিংবা সমুদ্র পরিবহণ অধিদপ্তরের ছাড়পত্রপ্রাপ্ত লঞ্চ থাকলেও বেশীরভাগ রুটেই ফিটনেসবিহীন লঞ্চ আর ইঞ্জিন চালিত নৌকায় করে যাত্রীদের চলাচল করতে হচ্ছে।

বিশেষ করে ভোলার ইলিশা থেকে লক্ষ্মীপুরের মজুচৌধুরীর হাট, দৌলতখান- মির্জাকালু থেকে চর জহিরুদ্দিন ও লক্ষ্মীপুরের আলেকজ্যান্ডার-রামগতি, তজুমদ্দিন ও চরফ্যাশন থেকে মনপুরা এবং মুজিবনগর, কুকরী-মুকরী, ঢালচর, পটুয়াখালীর বাউফলসহ বিভিন্ন চরাঞ্চল ও উপ-দ্বীপগুলোতে চরম ঝুঁকি নিয়ে গাদা-গাদি করে যাতায়াত করছে এসব এলাকার কয়েক লাখ মানুষ।এব্যাপারে যাএীরা জানান, ভোলার সাথে দক্ষিনাঞ্চলের জেলাগুলোর সাথেযোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম নৌপথ হওয়ায় প্রয়োজনের তাগিদে নদী পথেই যাতায়াত করতে হয় যাত্রীদের।

কিন্তু বিকল্প ব্যবস্থায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক নিরাপদ লঞ্চ ও সি ট্রাক নেই। তাই বাধ্য হয়ে যাত্রীরা ঝূকিপূর্ন ট্রলার, ইঞ্জিন নৌকা, ফিটনেস বিহীন ছোট ছোট লঞ্চে মেঘনা নদীর জেঞ্জার জোন পারি দিচ্ছে হাতের মুঠোয়
জীবন নিয়ে।

এব্যাপারে ভোলার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক বলেন, ভোলায় নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে নদী পথে যে সমস্ত নৌ যান চলে বিষেশ করে আমাদের এই মৌসুমে ডেঞ্জার জোনে যে নৌযান গুলোর ফিটনেস নেই চলার উপযোগী নয় সেগুলো সরকারের পক্ষ থেকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ডেঞ্জার জোনে চলাফেরা করছে তাদের বিরুদ্ধে আমরা মোবাইল র্কোট করছি। এবং এর পরও যারা চলাচল করছে তাদের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা গ্রহন করবো…… এমনটাই প্রত্যাশা সকলের।

নিউজবিডি৭১/আর/০৬ জুলাই, ২০১৮

Share.

Comments are closed.