২৪শে জুন, ২০১৮ ইং জয়পুরহাটে ১৮ হাজার ৪৪ মে. টন বোরো চাল সংগ্রহ লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ
Mountain View

জয়পুরহাটে ১৮ হাজার ৪৪ মে. টন বোরো চাল সংগ্রহ লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ

0
image_pdfimage_print

নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : সরকারের অভ্যন্তরীণ খাদ্য মজুদ নিশ্চিত করার জন্য জয়পুরহাট জেলায় চলতি বোরো মৌসুমে ১৮ হাজার ৪৪ মেট্রিক টন বোরো চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে স্থানীয় জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বিভাগ।

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ দপ্তর সূত্র জানায়, অভ্যন্তরীণ খাদ্য মজুত নিশ্চিত করার জন্য প্রতি বছরের ন্যায় সরকার এবারও বোরো চাল সংগ্রহের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। জেলার পাঁচ উপজেলা খাদ্য গুদামগুলোতে এ চাল সংগ্রহ করা হবে।

সংগ্রহ অভিযান চলবে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত। উপজেলা ভিত্তিক চাল সংগ্রহ লক্ষ্যমাত্রার মধ্যে রয়েছে জয়পুরহাট সদরে ৫ হাজার ১৬২ মেট্রিক টন, পাঁচবিবি উপজেলায় ৩ হাজার ৬শ’ মেট্রিক টন, আক্কেলপুরে ১ হাজার ২৭২ মেট্রিক টন, কালাই উপজেলায় ৫ হাজার ৪০৪ মেট্রিক টন ও ক্ষেতলাল উপজেলায় ২ হাজার ৬০৬ মেট্রিক টন ।

জেলা খাদ্য বিভাগ জানায়, চাল সংগ্রহের জন্য মিল মালিকদের সঙ্গে চুক্তি করার শেষ তারিখ ২০ মে পর্যন্ত জেলার ৫শ’ ১৬ জন মিল মালিক চুক্তি করেছেন বলে জানান, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মনিরুল ইসলাম।

জয়পুরহাট জেলায় অটো রাইচ মিল রয়েছে ১৮টি এবং হাসকিং মিল রয়েছে ৪শ’ ৯৮টি। ২০১৭ সালের বোরো চাল সরবরাহের জন্য সরকারের সঙ্গে চুক্তি না করার দায়ে কালো তালিকা ভুক্ত ৩শ’ ৫২ জন মিল মালিকের কালো তালিকা থেকে নাম প্রত্যাহার করে চলতি মৌসুমে চাল সরবরাহের সুযোগ প্রদান করা হয়েছে বলে জানান জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মনিরুল ইসলাম।

খাদ্য উৎপাদনে উদ্বৃত্ত জেলা জয়পুরহাটে এবারও বোরো’র বাম্পার ফলন হয়েছে। জেলায় চলতি বোরো চাষ মৌসুমে ৭২ হাজার ৩১৫ হেক্টর জমিতে বোরোর চাষ হয়। এতে প্রায় ৩ লাখ মেট্রিক টন চাল উৎপাদনের আশা করছেন কৃষি বিভাগ।

বোরো চাষে কৃষকের খরচের কথা চিন্তা করে সরকার এবার সিদ্ধ চাল ৩৮ টাকা কেজি ও আতপ চাল ৩৭ টাকা কেজি দরে কেনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। যা গত বছরের তুলনায় কেজি প্রতি ৫ টাকা বেশি। জেলার হাট-বাজারগুলোতে বোরো ধান বর্তমানে ভেজা অবস্থায় মোটা চিকন প্রকার ভেদে ৮শ’ ৫০ থেকে ৯শ’ টাকা মণ (৪০ কেজি) পর্যন্ত কেনা-বেচা হচ্ছে। যা বর্তমান বাজারের সর্বোচ্চ মূল্য বলে জানায় কৃষি বিভাগ।

নিউজবিডি৭১/আ/২১ মে ,২০১৮

Share.

Comments are closed.