২২শে জুলাই, ২০১৮ ইং মোবাইলফোন ও ল্যাপটপ চুরি ঠেকাতে করনীয় !
Mountain View

মোবাইলফোন ও ল্যাপটপ চুরি ঠেকাতে করনীয় !

0
image_pdfimage_print

মোঃ সাব্বরি রহমান : বর্তমানে ব্যক্তি জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে বিভিন্ন স্মার্ট ডিভাইস। এর মধ্যে স্মার্টফোন, ল্যাপটপ কিংবা ট্যাবলেট আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের তালিকায় রয়েছে।

স্মার্টফোন, ল্যাপটপ কিংবা ট্যাবলেট ছাড়া দিন কাটানো মুশকিল। তবে প্রয়োজনীয় এসব ডিভাইস চুরি হওয়ার শঙ্কায়ও নেহাত কম নয়। প্রতিদিন অসাবধনতা বশতঃ রিক্সা সহ অন্যান্য যানবাহন যোগে কিংবা পায়ে হেঁটে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে বিভিন্ন সময় দুষ্কৃতিকারী কর্তৃক ল্যাপটপ ও অফিসিয়াল ডকুমেন্ট চুরি যাচ্ছে। এর সুযোগে বিভিন্ন অফিসের কতিপয় অসৎ কর্মচারী বিভিন্ন সময় অফিসিয়াল ল্যাপটপ সহ অফিসিয়াল ইলেকট্রোনিক্স যন্ত্রপাতি নিজেরাই আত্মসাৎ করতঃ চুরির নাটক সাজাচ্ছে। এছাড়া অফিসিয়াল ল্যাপটপ বাসার নেওয়া সুযোগে অফিসের বিভিন্ন গোপন তথ্য অফিসের প্রতিপক্ষর নিকট ফাঁস হয়ে যাচ্ছে। ফলে এগুলোর নিরাপত্তা নিয়েও বিচলিত থাকতে হয় সবসময়। কেননা ডিভাইসগুলো হারিয়ে গেলে বা চুরি গেলে আর্থিক ক্ষতির চেয়েও বেশি অসহনীয় অবস্থায় পড়তে হয় ডিভাইসগুলোতে থাকা মূল্যবান ডাটার হারানোর ব্যাথায়। নিত্যপ্রয়োজনীয় এসব স্মার্টফোন, ল্যাপটপ কিংবা ট্যাবলেট চুরি প্রতিরোধে এবং চুরি হলে কি করণীয়:-

মোবাইল ফোন:- অ্যান্ড্রয়েড চালিত স্মার্টফোন এবং ট্যাবলেটের জন্য বিশেষ ট্রাকিং সিস্টেম রয়েছে। এক্ষেত্রে google.com/android/devicemanager সেবা ব্যবহার করে অ্যান্ড্রয়েড  চালিত যে কোনো স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট ব্যবহারকারী তার ডিভাইসটির অবস্থান জানতে পারবেন। এজন্য ডিভাইসটিকে সংশ্লিষ্ট ব্যবহারকারীর গুগল আইডির সঙ্গে যুক্ত থাকতে হবে। সেবাটির মাধ্যমে অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ট্র্যাক করা, ম্যাপের সাহায্যে তার অবস্থান নির্ণয় করা যাবে। চুরি হওয়া ডিভাইস উদ্ধার করা না গেলেও সেবাটির মাধ্যমে দূর থেকেই ডিভাইস লক করে দেয়া এবং ডিভাইসের যাবতীয় তথ্য মুছে দিতে পারবেন। এছাড়া এভিজি, অ্যাভাস্ট অথবা ক্যাসপারস্কি অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ ব্যবহার করেও ট্যাকিং সুবিধা পাওয়া যাবে। এগুলো দূর থেকেই ফোনলক কিংবা ডিভাইসের সব ডাটা মুছে দিতে পারে। সব অ্যাপল ডিভাইসের জন্যই
রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির ফ্রি ‘অ্যান্টি থেফট’অ্যাপস। এ অ্যাপ ব্যবহার করে হারিয়ে যাওয়া অ্যাপল ডিভাইসের অবস্থান শনাক্ত করা সম্ভব। এজন্য ঋরহফ গু চযড়হব অপশনটি খুঁজে বের করে আইফোন, আইপ্যাড বা আইপড টাচে সেট আপ করে নিতে হবে। পরবর্তীতে অ্যাপল অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে এসব ডিভাইসটি পরিচালনা করতে পারবেন। যে কোনো ওয়েব ব্রাউজার থেকে আইক্লাউডের অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করে সংশ্লিষ্ট ডিভাইসটিতে এসএমএস পাঠিয়ে অ্যাপল ডিভাইসটি লক করে দেয়া থেকে শুরু করে সব তথ্যও মুছে দেয়া যাবে। এছাড়াও আপনার আইফোন, আইপ্যাড বা আইপড টাচে অ্যান্টি থেফট অ্যাপস হিসেবে অন্যান্য অ্যাপসও ব্যবহার করতে পারেন। যেমন- windowsphone.com অথবা GRb¨ Avcbvi DB অ্যাপস। উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারীরাও তাদের মোবাইল ডিভাইস হারিয়ে গেলে তা শনাক্ত করার সুবিধা পাবেন। এজন্য উইন্ডোজ ফোনে ঋরহফ গু চযড়হব নামক অ্যান্টি থেফট অ্যাপস ব্যবহার করা লাগবে। এ সেবা ব্যবহার করতে হলে LAlarm (lalarm.com) ওয়েবে প্রবেশ করতে হবে। এজন্য আপনার উইন্ডোজ মোবাইল ডিভাইস থাকা উইন্ডোজ লাইভ আইডি ব্যবহার করা লাগবে। এ সেবার মাধ্যমে দূরে থেকেই উইন্ডোজ ফোনটি লক করার জন্য নতুন পাসওয়ার্ড যুক্ত করা এবং মোবাইলে থাকা সব তথ্য মুছে দিতে পারবেন। ব্ল্যাকবেরি ডিভাইসের অ্যান্টি-থেফট সেবাটির নাম হচ্ছে ইষধপশইবৎৎু চৎড়ঃবপঃ এটি ব্যবহারের জন্য ব্ল্যাকবেরিতে একটি অ্যাকাউন্ট খুলে আইডি সেট করতে হবে। পরবর্তীতে অন্যান্য স্মার্টফোনের মতো ওয়েবসাইটে লগইন করে আপনার ব্ল্যাকবেরি ডিভাইসের অবস্থান ট্র্যাক করতে পারবেন এবং সমস্ত ডাটা মুছে দিতে এবং ডিভাইসটি লক করে দেয়া যাবে। ব্ল্যাকবেরির এ সেবার বিশেষ দিক হচ্ছে, একটি অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে সর্বোচ্চ ৭টি ডিভাইসের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যাবে। স্মার্টফোন কিংবা ট্যাবলেট চুরি করা বেশ সহজ ব্যাপার। কেননা ল্যাপটপের মতো এগুলোতে কোনো লক পোর্ট নেই। তবে ম্যাকের ইউনিভার্সাল লক কিনতে পারেন, যা অনেক স্মার্টফোন ও ট্যাবে কাজ করে। এরপরও স্মার্টফোন কিংবা ট্যাবলেটটি নিয়ে চিন্তিত থাকলে টেবিলের সঙ্গেই স্মার্টফোন কিংবা ট্যাবলেটটি সংযুক্ত করে রাখতে পারেন। এজন্য কেনসিংটন অথবা রকফর্ম সিকিউরিটি লক ব্যবহার করতে পারেন।

ল্যাপটপ:- উইন্ডোজ ল্যাপটপের জন্য বিনামূল্যে খঅষধৎস ( Rb Prey on your device device) পাওয়া যায়। এটি সেট করা থাকলে গুগল ম্যাপের মাধ্যমে আপনি আপনার ডিভাইসটি লক ও ডাটা নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। আপনার গুগল অ্যাকাউন্টটি আপনি ছাড়া অন্য কেউ ব্যবহার করতে গেলেই এলএলার্ম আপনাকে বার্তা পাঠাবে এবং ল্যাপটপটিতে জোড়ে অ্যালার্ম বেজে উঠবে। এছাড়া চুরি হওয়া বা হারিয়ে যাওয়া উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমের ল্যাপটপটির অবস্থান শনাক্তকরণে Find my Mac অ্যাপ্লিকেশনটিও বেশ কার্যকর। গুগল ম্যাপের সাহায্যে এটি ল্যাপটপের অবস্থান দেখাবে। আরো নিরাপত্তার জন্য চৎবু ড়হ ুড়ঁৎ ফবারপব ফবারপব নামক অ্যান্টি-থেফট অ্যাপ্লিকেশনটিও ব্যবহার করতে পারেন। অ্যাপলের ম্যাকবুক ল্যাপটপের সুরক্ষায় রয়েছে নিজস্ব ঋরহফ সু গধপ অ্যাপ্লিকেশন।

ম্যাকবুক ব্যবহারকারীরা আইক্লাউড অ্যাকাউন্টে লগ-ইন করলে এটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে সক্রিয় হয়ে যাবে। ম্যাকবুকটি কখনও চুরি হয়ে গেলে এর মাধ্যমে ল্যাপটপটির অবস্থান ট্র্যাক করে প্রয়োজনীয় সমস্ত ডাটা মুছে দিয়ে ডিভাইসটি লক করতে পারবেন। বর্তমানে বেশিরভাগ ল্যাপটপেই নিরাপত্তা পোর্ট হিসেবে কেনসিংটন সিকিউরিটি পোর্ট দেয়া থাকে। এই পোর্টটির মাধ্যমে ফিজিক্যালি ল্যাপটপকে সুরক্ষিত রাখতে পারেন। এজন্য একটি সিকিউরিটি লক কিনে তা ক্যাবলের মাধ্যমে ল্যাপটপে সংযোগ দিয়ে নিরাপদ থাকতে পারেন।

সংগ্রহিতঃ- মোঃ সাব্বরি রহমান, পুলশি পরর্দিশক (তদন্ত), বাঞ্ছারামপুর মডলে থানা, ব্রাহ্মণবাড়য়িা।

আর/ ১৫ এপ্রিল, ২০১৮

Share.

Comments are closed.