ক্যান্টনমেন্ট ইমিগ্রেশনে দালালদের মাধ্যমে পন্য খালাস

নিউজবিডি৭১ডটকম
জুবায়ের হোসেন : ঢাকা কলকাতা ট্রেনে যাত্রীবেশে ব্যবসায়ীদের রাজস্ব্য ফাঁকি-নিরব রয়েছে কাস্টম কর্তৃপক্ষ। ক্যান্টনমেন্ট ইমিগ্রেশনে দালালদের মাধ্যমে রাজস্ব বিহিন হচ্ছে পন্য খালাস প্রতিবেদক এ বিষয়ে কথা বলতে গেলে রাজি হয়নি ঢাকা কাস্টম কমিশনার প্রকাশ দেওয়ান।

এ বিষয়ে প্রতিবেদক অনুসন্ধান করে জানতে পারেন,বিদেশী পন্য আমদানি ও রপ্তানিতে ভ্যাট নির্ধারন থাকলেও কিছু দালালচক্র ও অসাধু কর্মকর্তাদের সাথে আতাত করে বিভিন্ন পয়েন্টে বর্ডার দিয়ে দেশে ঢুকছে শাড়ী থ্রি পিস,কসমেটিক্স, ১পিস, লেহেঙ্গা, সেরোয়ানী। এতে রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার।

যাত্রীদের নিকট হতে কিছু মাল সরকারী খাতায় জমা করলেও ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের নিকট হতে সপ্তাহের মাধ্যমে দেশে প্রবেশ করছে রাজস্ব বিহীন পন্য।

ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট হয়ে কোলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস দিয়ে বেশির ভাগ পন্য দেশে প্রবেশ করছে এক্ষেত্রে রাজস্ব আদায়ে সরকারী কর্মকর্তা নিয়োজিত থাকলেও তাদের নিজস্ব পকেট ভারি করার কাজে ব্যস্ত সময় পার করছে তারা।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার সর্তে একাধীক ব্যবসায়ী জানায়, প্রতি টিপে কাস্টম চেকিং কর্মকর্তাদের টাকা দিতে হয়। টাকার কথা আগে থেকে কন্টাক করা হয়।

টাকা না দিলে মাল আটক করে ডিএম করা হয় কিন্তু টাকা দিলে তাদের লাগেজ ব্যগ কিছুই চেক হয় না।
চেকিংক পয়েন্টে কাস্টম এর কর্মরত মো: রিয়াজ তার রয়েছে সক্ষতা। ট্রেন যাত্রী নিজে ব্যবহারের জন্য কোন পোষাক বহন করে তাহলে কাস্টম কর্মকর্তারা যাত্রীকে নির্দেশ দেন পাশের রুমে গিয়ে রিয়াজের সাথে কথা বলেন।

এ বিষয়ে ঢাকা কাস্টম কমিশনার প্রকাশ দেওয়ান সাংবাদিক পরিচয় পাওয়ার পর ১ ঘন্টা বসিয়ে রাখার পর কথা বলতে রাজি হয়নি।

নিউজবিডি৭১/আ/ ৭ ফেব্রুয়ারি , ২০১৮