১১ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যেই বৈধ হওয়ার কার্যক্রমে অংশ নিন

৩১ ডিসেম্বরের মধ্যেই বৈধ হওয়ার কার্যক্রমে অংশ নিন

0

নিউজবিডি৭১ডটকম
শামছুজ্জামান নাঈম,মালয়েশিয়া করেসপন্ডেন্ট: মালয়েশিয়ায় বসবাসরত কাগজপত্রহীন বাংলাদেশীদেরকে চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যেই বৈধ হওয়ার কার্যক্রমে অংশ নিতে আবারও জোর তাগিদ দিয়েছেন দেশটিতে অবস্থিত বাংলাদেশ হাই কমিশনের কাউন্সিলর (লেবার) সায়েদুল ইসলাম।

বুধবার বিকেলে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা জানান।

৩১ ডিসেম্বরের মধ্যেই সকলকে বৈধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, রি-হায়ারিং এর আওতায় এখনও যারা আসেন নি তাদেরকে প্রিন্ট-ইলেক্ট্রনিক, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মাধ্যমে আহ্বান অব্যাহত রেখেছি যাতে সকলে বৈধ কাগজপত্র গ্রহন করেন।

কেননা এরপর থেকে মালয়েশিয়ান সরকার অবৈধ অভিবাসী আটকে বড় ধরনের অভিজান পরিচালনা করবে। এতে আটককৃতদের দেশে ফেরত পাঠানো হবে বলেও জানান তিনি।

শ্রমিকদেরকে আর একটি দিনও নষ্ট না করে দ্রুত কাগজপত্র সংগ্রহ করে বৈধ হয়ে ভালো এবং নিরাপদে থাকার আহ্বানও জানান তিনি।

এদিকে বুধবার দুপুরে মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন পরিদর্শন করেছে মালয়েশিয়ার ফরেন ওয়ার্কার্স ডিভিশনের পরিচালক দাতু খাইরিল, ডিটেনশন ক্যাম্পের পরিচালক ম্যাডাম সালেহা, ইনফোর্সমেন্ট ডিভিশনের পরিচালক সারাভানান ও রি- হায়ারিং এর জন্য মালয়েশিয়া গভ. তালিকাভুক্ত মাই-ইজি, বিএম ও ইমান এর পরিচালকবৃন্দ। পরিদর্শন শেষে হাই কমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন তারা।

বৈঠক শেষে বাংলাদেশ হাই কমিশনের কাউন্সিলর (লেবার) সায়েদুল ইসলাম জানান, সে সকল শ্রমিকরা বিভিন্ন কোম্পানির অধীনে রি-হায়ারিংএর মাধ্যমে বৈধ হতে আবেদন করেছেন কিন্তু এখনও ইমিগ্রেশন এ গিয়ে ফিঙ্গার প্রিন্ট দেন নি তাদেরকে অতিদ্রুত তাদের কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

এক্ষেত্রে কোম্পানি সাড়া না দিলে তারা সরাসরি রি-হায়ারিং এর জন্য মালয়েশিয়া গভ. তালিকাভুক্ত মাই-ইজি, বিএম ও ইমান এর সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। আর ঐ সকল কোম্পানির বিরুদ্ধে মালয়েশিয়া সরকার টাস্কফোর্স গঠন করেন অতি শিগ্রই আইনি ব্যবস্থা নিবে বলেও জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, যে সকল কোম্পানি তাদের নির্ধারিত শ্রমিক কৌটার চেয়ে বেশি মানুষকে বৈধ হওয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করিয়েছেন। কিন্তু এখন শ্রমিকদেরকে ইমিগ্রেশনে নিয়ে যাচ্ছেন না সে সকল কোম্পানিকে ব্ল্যাকলিস্ট করাসহ তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিবে মালয়েশিয়ান সরকার।

রি-হায়ারিং এর জন্য মালয়েশিয়া গভ. তালিকাভুক্ত মাই-ইজি, বিএম ও ইমান কে বাংলাদেশ হাই কমিশনের পক্ষথেকে একটি করে হটলাইন চালু করার আহ্বান জানানো হয়েছে বলে জানান তিনি। যাতে করে রেজিস্ট্রেশন করা শ্রমিকরা তাদের কোম্পানি ছাড়াও সরাসরি এই তিনটি কোম্পানির সঙ্গে যোগাযোগ করে অন্য কোম্পানির আওতায় ভিসা পেতে পারেন। এক্ষেত্রে তাদের বাড়তি কোন টাকা প্রদান করতে হবে না।

রেজিস্ট্রেশন করেছেন কিন্তু এখনও ভিসা পাননি এমন শ্রমিকদের জন্য মাইইজি ইতোমধ্যে একটি হটলাইন চালু করেছে। যার নাম্বার ০৩৭৬৬৪৮৫৫৫।

উল্লেখ্য, এ পর্যন্ত রি-হায়ারিং এর জন্য মালয়েশিয়া গভ. তালিকাভুক্ত মাই-ইজি, বুক্তিমেঘা ও ইমান এর মাধ্যমে প্রায় তিন লাখ ৯৭ হাজার ৬৫ জন বাংলাদেশি কর্মী রি-হায়ারিংয়ের জন্য নিবন্ধিত হয়েছেন। এক লাখ ২০ হাজারেরও বেশি ই-কার্ড সংগ্রহ করেছেন।

নিউজবিডি৭১/আর/৭ ডিসেম্বর , ২০১৭

image_print
Share.

Comments are closed.