১১ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং অবৈধ গর্ভপাত! আরও একবার ভেবে নিন…

অবৈধ গর্ভপাত! আরও একবার ভেবে নিন…

0

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : বৈধ হোক বা অবৈধ, যে কোনও কারণেই হোক না কেন, আপনি স্থির করে ফেলেছেন, এই সময় মা হওয়া আপনার পক্ষে সম্ভব নয়। অগত্যা গর্ভপাত করানো ছাড়া উপায় নেই। তা সে ওযুধ খেয়েই হোক বা অপারেশন, দু’ভাবেই গর্ভপাত করানো যায়। তবে, এটি নির্ভর করে আপনি কত মাসের সন্তানসম্ভবা, তার উপর। তবে, গর্ভপাত করাব বললেই হল না। তার আগে এর জন্য আপনি প্রস্তুত কী না সে বিষয়টিও ভেবে দেখা দরকার। কারণ, আপনার শরীরের একটা অংশ আপনি বাদ দিতে চলেছেন। এর প্রভাব কিন্তু আপনার শরীর ও মন দু’ইয়ের উপরই পড়ে। তাই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে আরও একবার ভেবে দেখুন।

গর্ভস্থ ভ্রুণকে অপসারণ করতে হলে ওযুধ প্রয়োগে হোক বা অপারেশন, যাই করুন না কেন, প্রচন্ড যন্ত্রণা ভোগ করতে হবে আপনাকে। আর তার সঙ্গে মাত্রাতিরিক্ত ব্লিডিংয়ের সমস্যা আপনাকে দুর্বল করে দেবে। শয্যাশায়ী হয়ে পড়বেন আপনি।

যদি অপারেশন করান, সেক্ষেত্রে অনেক সময়ই আনস্টেরালাইজ়ড যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এতে জরায়ুতে ইনফেকশনের সম্ভাবনা থেকে যায়। হয়তো পরবর্তীকালে এর মারাত্মক প্রভাবও পড়তে পারে। দেখা যায় এর ফলে অনেকসময় অনেকেই সন্তানধারণের ক্ষমতাও হারিয়ে ফেলেন।

সন্তানসম্ভবা হলে শারীরিক গঠনে পরিবর্তন আসে। গর্ভপাত করালে হঠাৎ করে ব্রেস্ট মিল্ক উৎপাদন ক্ষমতা বন্ধ হয়ে যায়। এতে স্তনের বেশ কিছু পরিবর্তন দেখা যায়। অনেকের আবার লাম্ফের সমস্যাও দেখা যায়।

এতো গেল শারীরিক সমস্যা, পাশাপাশি আছে মানসিক সমস্যাও। কখনও ভেবেছেন, যার জন্য এত কিছু, তাকেই আনতে রাজি নন আপনি? এই মানসিক আঘাত সামলাতে পারবেন তো? তাছাড়া, গর্ভপাতের পর প্রচুর হরমোনাল পরিবর্তন আসে শরীরে।

তাই সবদিক ভেবেচিন্তে সিদ্ধান্ত নিন। যদি একান্তই আপনি প্রস্তত না থাকেন, সন্তানকে আনতে সেক্ষেত্রে বিষয়টি আলাদা কিন্তু, যদি মনে হয় সন্তানকে আনার মত মানসিক জোর আপনার আছে, তাহলে গর্ভপাতের রাস্তায় না হাঁটাই ভালো।

নিউজবিডি৭১/আর/৩ ডিসেম্বর , ২০১৭

image_print
Share.

Comments are closed.