১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং ২ দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজ, আলুর বাজার অস্থির
Mountain View

২ দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজ, আলুর বাজার অস্থির

0

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : রাজধানীর পাইকারি বাজারে ২ দিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের কেজিতে বেড়েছে ১৮ থেকে ২০ টাকা। ভারতীয় পেঁয়াজের আমদানি ব্যয় বেড়ে যাওয়ায় বাজারে সব ধরনের পেঁয়াজের দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন পাইকারি বিক্রেতারা।

অন্যদিকে পাইকারি বাজারে আলুর দাম কমলেও দ্বিগুণ দামে বিক্রি হচ্ছে খুচরা বাজারে। যদিও আলুর দাম নিয়ে নানা অজুহাত খুচরা বিক্রেতাদের। বাজারে চালের ও অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম স্থিতিশীল আছে।

গেল সপ্তাহের মত এ সপ্তাহেও পেঁয়াজের বাজারে রয়েছে অস্থিরতা। গত সপ্তাহে পাইকারি বাজারে যে ভারতীয় পেঁয়াজের কেজি বিক্রি ছিল ৫০ টাকা চলতি সপ্তাহে তা ঠেকেছে ৭০ টাকায়। আমদানি করা পেঁয়াজের দাম বাড়ায় বরাবরের মত বেড়েছে দেশি পেঁয়াজের দামও। তবে আদা, রসুন বিক্রি হচ্ছে আগের দামেই।

পাইকারি বাজারে আমন মৌসুমের চাল আসতে শুরু করায় এবং আমদানি অব্যাহত থাকায়, চালের বাজার কিছুটা নিম্নমুখী।

একইরকম ভাবে ভোজ্যতেল, ডাল, মসলাসহ অন্যান্য নিত্যপণ্যের দামও অপরিবর্তিত রয়েছে পাইকারি বাজারে।

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের এক মুদি দোকানি জানান, ‘চিনির দাম কেজিতে ষাট পয়সার মতো বাড়তি, মসুর ডাল বড়টা ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, দেশি মসুর ডাল ৮০ টাকা। খেসারি ডাল ৪৬ টাকা। মুগ ডাল ১০০ থেকে ১৪০ টাকা আর পাম তেল ৭৩ টাকা এবং সয়াবিন ৮৭ টাকা।

কিন্তু পাইকারি এবং খুচরা বাজারের আলুর দামের ব্যবধান অস্বাভাবিক। পাইকারি বাজারে মানভেদে যে আলুর দাম ৬ থেকে ১০ টাকা, খুচরা বাজারে তা বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ২৫ টাকায়।

খুচরা বাজারে সঠিক মনিটরিং না থাকায় স্থিতিশীল বাজারের সুফল পাওয়া যায় না বলে মনে করেন ক্রেতারা।

নিউজবিডি৭১/এম/২৫ নভেম্বর ২০১৭

image_print
Share.

Comments are closed.