২০শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং যেকোন মুহূর্তে সৌদি-লেবানন যুদ্ধ !

যেকোন মুহূর্তে সৌদি-লেবানন যুদ্ধ !

0

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : সৌদি এবং লেবাননের মধ্যেকার উদ্বেগজনক পরিস্থিতি বিরাজ করছে। লেবাননের প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরির পদত্যাগের পর থেকেই এই দুই দেশের মধ্যে চরম উত্তেজনা চলছে। ফলে যেকোন মুহূর্তে যুদ্ধ বেঁধে যেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তেনি৷

তিনি জানান, দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ বাঁধলে তা এখন ভয়াবহ আকার নিতে পারে। সৌদি আরব, লেবানন ও মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশের নেতাদের সঙ্গে তার নিবিড় যোগাযোগ রয়েছে৷ সেক্ষেত্রে এখানে যাতে কোনওভাবেই যুদ্ধের পরিস্থিতি সৃষ্টি না হয়৷ সেই বিষয়টি তিনি খতিয়ে দেখবেন৷

বহু দিন ধরেই লেবানন মোটামুটি দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে গিয়েছিল।

এদের মধ্যে একটি ছিল ইরান সমর্থিত শিয়াপন্থী হিজবুল্লা গোষ্ঠী, অন্যটি সৌদি আরবের সমর্থন পাওয়া হারিরির সুন্নিপন্থী দল। এখন হিজবুল্লাই গোটা লেবাননের দখল নিয়ে বসে আছে বলে ইস্তফা দেওয়ার দিন সুর চড়িয়েছিলেন লেবাননের প্রাইম মিনিস্টার হারিরি। কূটনৈতিক মহলের দাবি, এর পরই সৌদির সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হতে শুরু করে। তবে, যদি সত্যিই যুদ্ধ বাঁধে সৌদি-ইরানের, তাতে লেবাননকেই ভুগতে হবে বলে মনে করছেন তাঁরা।

এদের মধ্যে একটি ছিল ইরান সমর্থিত শিয়াপন্থী হিজবুল্লা গোষ্ঠী, অন্যটি সৌদি আরবের সমর্থন পাওয়া হারিরির সুন্নিপন্থী দল। এখন হিজবুল্লাই গোটা লেবাননের দখল নিয়ে বসে আছে বলে ইস্তফা দেওয়ার দিন সুর চড়িয়েছিলেন লেবাননের প্রাইম মিনিস্টার হারিরি। কূটনৈতিক মহলের দাবি, এর পরই সৌদির সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি হতে শুরু করে। তবে, যদি সত্যিই যুদ্ধ বাঁধে সৌদি-ইরানের, তাতে লেবাননকেই ভুগতে হবে বলে মনে করছেন তাঁরা।

অনেকে আশংকা করছেন, সুন্নি-প্রধান সৌদি আরব এবং শিয়া-প্রধান ইরানের মধ্যে চলমান বিবাদে লেবাননও জড়িয়ে যেতে পারে। সৌদি আরব ইতোমধ্যেই লেবানন থেকে তার সকল নাগরিককে চলে যাবার নির্দেশ দিয়েছে।

ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, সৌদি আরবের কাছ থেকে ইরান সম্পর্কে বেশ ‘কঠোর মতামত’ তিনি শুনেছেন, যার সাথে তার নিজস্ব মতামত মেলে না।

নিউজবিডি৭১/এম/১২ নভেম্বর ২০১৭

image_print
Share.

Comments are closed.