১৮ই জুলাই, ২০১৮ ইং কী‘গুরুত্বপূর্ণ বার্তা’নিয়ে সমাবেশে আসছেন খালেদা
Mountain View

কী‘গুরুত্বপূর্ণ বার্তা’নিয়ে সমাবেশে আসছেন খালেদা

0
image_pdfimage_print

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : প্রায় দেড় বছর পর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশের মধ্য দিয়ে ঢাকায় কোনো জনসভায় বক্তৃতা দিতে যাচ্ছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। নির্বাচনের আগের বছরে রোববারের এই সমাবেশে তিনি গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দেবেন বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানিয়েছেন।

এদিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের এই সমাবেশ ঘিরে বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা দেখা গেছে। প্রস্তুত হয়েছে সভামঞ্চ। ব্যানার ফেষ্টুন পোস্টারে ছেঁয়ে গেছে উদ্যানের চৌহদ্দি।

তিনি শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “শুধু জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস পালনই এই গণসমাবেশের মূল লক্ষ্য নয়; সেই সঙ্গে জনগণের গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে আনবার জন্যে চলমান যে আন্দোলন, সেই আন্দোলনকে সুসংহত করবার ক্ষেত্রে, জনগণের কাছে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার যে মেসেজ… বা তিনি যে বাণী দেবেন- সেটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে সমগ্র দেশের সচেতন মানুষ মনে করে।

আমরা মনে করি, এই গণসমাবেশ থেকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কাছ থেকে জাতি যা পাবে, সেটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ হবে।

শনিবার সকালে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিএনপির সমাবেশ শান্তিপূর্ণ হলে সরকার সহযোগিতা করবে। তবে কোনো ধরনের বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি করলে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।’

শনিবার মির্জা ফখরুল জানান, জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবসের গণসমাবেশ অনুষ্ঠানের ব্যাপারে ডিএমপির সম্মতিপত্র তাদের কাছে এসে পৌঁছেছে। ২৩টি শর্ত দিয়ে তারা এই সমাবেশ অনুষ্ঠানের সম্মতি দিয়েছে।

সমাবেশ সফল করতে সরকারের সহযোগিতা চেয়ে তিনি বলেন, ‘আশা করি আপনারা সহযোগিতা করবেন। সমাবেশে বাধা দিয়ে গণতান্ত্রিক পরিবেশে বিঘ্ন ঘটাবেন না।’

তৈরির জন্য সরকারের পাতানো কোনো ধরনের ফাঁদে পা না দিতেও দলের নেতা-কর্মীদের পরামর্শ দেন বিএনপি মহাসচিব।

এদিকে সমাবেশ সামনে রেখে রাজধানী ও দেশের বিভিন্ন স্থানে বিএনপি নেতাকর্মীদের ধরপাকড়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। দেশের অনেক স্থান থেকেই রাজধানীমুখী বাস ও লঞ্চ চলাচল না করার খবর পাওয়া গেছে।

রোববারের এই জনসভার মধ্য দিয়ে প্রায় দুই বছর পর ঢাকায় কোনো সমাবেশে বক্তৃতা দিতে উঠবেন খালেদা জিয়া। এর আগে সর্বশেষ গত বছরের ৫ জানুয়ারি নয়াপল্টনে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে জনসভায় অংশ নেন তিনি। আর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে খালেদার সর্বশেষ সমাবেশ হয়েছিল ২০১৪ সালের ২০ জানুয়ারি।

দুপুর ২টার পর খালেদা জিয়া সমাবেশস্থলে পৌঁছাবেন বলে জানা গেছে বিএনপি সূত্রে। তবে এর আগে থেকেই সমাবেশ মঞ্চে শুরু হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

নিউজবিডি৭১/এম/১২ নভেম্বর ২০১৭

Share.

Comments are closed.