২০শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং রংপুরে গুলিতে নিহত ১, ৩০ বাড়িতে আগুন

রংপুরে গুলিতে নিহত ১, ৩০ বাড়িতে আগুন

0

নিউজবিডি৭১ডটকম
রংপুর : ফেসবুকে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্য লিখে স্ট্যাটাস দেয়ায় রংপুরে সংঘর্ষ হয়েছে। এ সংঘর্ষে গুলিতে একজন নিহত হয়েছে। গুলিবিদ্ধ হয়েছে আরো ৬ জন। এতে ক্ষুব্ধ জনতা ঠাকুৃরবাড়ি গ্রামে অন্তত ৩০টি বাড়িতে হামলা চালায় এবং বাড়িঘর ও মন্দিরে আগুন ধরিয়ে দেয়।

মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্য লিখে স্ট্যাটাস দেয়ায় ঘটনায় শুক্রবার (১০ নভেম্বর) জুম্মার নামাজের পর বিক্ষুব্ধ জনতা রংপুরের সদর উপজেলার পাগলাপীর ঠাকুরবাড়ি গ্রামে হামলা চালায়।

এ ঘটনায় পুলিশের সাথে জনতার ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষে হামিদুল ইসলাম (২৭) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। গুলিবিদ্ধসহ পুলিশের কর্মকর্তারা সহ আহত হয়েছে ৫০ জন মুসল্লি। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শত শত রাউন্ড টিয়ার সেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। এখনো সেখানে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

পুলিশ জানায়- নারায়নগঞ্জের ফতুল্লায় একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরীতে কর্মরত রংপুরের পাগলাপীর ঠাকুরবাড়ি গ্রামের টিটু রায় কয়েকদিন আগে তার নিজের ফেসবুক আইডিতে মহানবী সম্পর্কে আপত্তিকর স্ট্যাটাস দেয়ার ঘটনা জানাজানি হলে রংপুরের পাগলাপীর, মমিনপুর হাড়িয়াল কুঠি সহ আশে পার্শ্বের এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

শুক্রবার (১০ নভেম্বর) জুম্মার নামাজের পর আশে পার্শ্বের ৬/৭ টি গ্রামের প্রায় ২০ হাজার মানুষ দায়ি টিটু রায়ের ঠাকুরবাড়ি গ্রামের বাড়িতে হামলা চালাতে আসলে পুলিশের সাথে জনতার সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় পুলিশ টিয়ার সেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে পুলিশ গুলি চালালে ৬ জন মুসল্লি গুলিবিদ্ধ হয়। এদেরকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতদের মধ্যে হামিদুল ইসলাম নামে এক যুবক মারা যায়। আহতদের অবস্থা আশংকাজনক বলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা ঠাকুৃরবাড়ি গ্রামে অন্তত ৩০টি বাড়িতে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে সেই সাথে বাড়ি ঘরে আগুন জালিয়ে দেয়। এ সময় হিন্দু সম্প্রদায়ের একটি মন্দিরে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন।

অপরদিকে, সংঘর্ষ চলার এক পর্যায়ের হিন্দু সম্প্রদায়ের বেশ কয়েকটি বাড়ির মালামাল লুট করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে ঠাকুরবাড়ি গ্রামের হিন্দু পাড়ার মানুষ।
এ ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ জনতা রংপুর দিনাজপুর মহাসড়ক প্রায় ৪ ঘন্টা অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। ফলে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বিপুল সংখ্যক পুলিশ ঘটনা স্থলে অবস্থান করলেও এখনো পরিস্থিতি উত্তপ্ত রয়েছে। জনতা বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছে। কোতয়ালী থানার ওসি অপারেশন মোকতারুল ইসলাম জানান,পুরো পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তারা চেষ্টা করছেন।

রংপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এ সার্কেল সাইফুর রহমান জানান-বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। পরিস্থিতি মোকাবেলায় ঘটনাস্থলে বিপুল সংখ্যক দাঙ্গা পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এ ঘটনার পর পাগলাপীর ও এর আশপাশের গ্রামগুলো পুরুষ শূন্য হয়ে পড়েছে।

নিউজবিডি৭১/এম/১১ নভেম্বর ২০১৭

image_print
Share.

Comments are closed.