২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং ১৫ সেপ্টেম্বরের পর ভারত চাল রফতানি করবে না

১৫ সেপ্টেম্বরের পর ভারত চাল রফতানি করবে না

0

নিউজবিডি৭১ডটকম
মহসিন মিলন করেসপন্ডেন্ট : বাজারে চালের মূল্য অস্থিতিশীল করতে একটি মহল বন্দর এলাকায় অপপ্রচার চালাচ্ছে ব্যবসায়ীদের মাঝে। মহলটি গত ১০ সেপ্টম্বর ভারতের মিনিস্ট্রি অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ’র স্বাক্ষর বিহীন একটি ভূয়া চিঠি বন্দর এলাকায় বিভিন্ন ব্যাসায়ীদের মাঝে প্রচার করেছে। চিঠিতে বলা হয় আগামী ১৫ সেপ্টেম্বরের পর ভারত বাংলাদেশে চাল রফতানি করবে না।

চিঠি মোবাইলে ছবি ধারন করে তা শেয়ার ইট এর মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হচ্ছে ব্যবসায়ীদের মঝে। চিঠির সুত্র ধরে আমদানিকারকরা ইচ্ছেমত গত ৩ দিনে চালের মূল্য কেজি প্রতি ২/৩ টাকা করে বাড়িয়ে দিয়েছে। চিঠির গুজবে বাজারে চালের দাম হু হু করে বাড়াতে শুরু করেছে। ইতিমধ্যে এ সংক্রান্ত একটি মিথ্যা সংবাদও বেশ কটি টিভি চ্যানল ও প্রত্রিকায় প্রকাশ পাওয়ার পর বাজারে চালের দাম আরো একধাপ বেড়েছে। অনেক আমদানিকারক বন্দর থেকে চাল খালাশের পর তা তাদের নিজস্ব গুদামে স্টক করতে শুরু করেছে। বেনাপোলের আমদানিকারক আ: সামাদ জানান, সর্বশেষ বন্দর থেকে চাল খালাশের পর তা বন্দরেই বিক্রির রেট অনুযায়ী গত ১১ সেপ্টেম্বর স্বর্না চাল ৪২ টাকা ও মিনিকেট চাল ৪৯ টাকা দরে বিক্রি হযেছে। ১২ সেপ্টেম্বর স্বর্না চাল ৪৩ টাকা ও মিনিকেট চাল ৫১ টাকা দরে বিক্রি হয় এবং ১৩ সেপ্টম্বর স্বর্না চাল ৪৪.৫০ টাকা ও মিনিকেট চাল ৫২.৫০ টাকা মূল্যে বিক্রি হয়।

কাস্টমস একটি সুত্র জানায় গত ১২ সেপ্টেম্বর বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে ২ হাজার ২৪০ মে.টন চাল আমদানি হযেছে। আজ ১৩ সেপ্টম্বর বিকেল ৫ টা পর্যন্ত বেনাপোল বন্দরে ২ হাজার ৪৬০ মে.টন চাল আমদানি হযেছে।

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার শওকাত হোসেন জানান, আগামী ১৫ সেপ্টম্বরের পর বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে কোন চাল আমদানি হবে না এটা এক ধরনের অপপ্রচার। তাছাড়া মোবাইলে ধারন করা যে চিঠি বন্দর এলাকায় প্রচার করা হচ্ছে সে চিঠিতে কোন স্বাক্ষর নেই। বাজারে চালের মূল্য অস্থিতিশীল করতে একটি মহল বন্দর এলাকায় অপপ্রচার চালাচ্ছে ।

নিউজবিডি৭১/এম/১৩ সেপ্টেম্বর , ২০১৭

image_print
Share.

Comments are closed.