২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ইং ডাক্তাররা যুবতীর পেট অপারেশন করে এ কী পেলেন ! জানলে হতবাক হবেন

ডাক্তাররা যুবতীর পেট অপারেশন করে এ কী পেলেন ! জানলে হতবাক হবেন

0

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : ১৮ বছরের মেয়েটি বিগত বেশ কয়েক মাস ধরে পানি খেতে পারছিলেন না। খেতে পারছিলেন না খাবারও। কোনও কিছু খেলেই বমি হয়ে যাচ্ছিল। পরিণামে প্রবল ডিহাইড্রেশন ও অপুষ্টিতে মরার মতো অবস্থা হয় তাঁর। ডাক্তাররা অবিলম্বে তাঁর পেটে অপারেশনের সিদ্ধান্ত নেন। কিন্তু পেট কাটতেই ভিতর থেকে যা বেরলো, তা দেখে চক্ষু চড়কগাছ হল তাঁদের।

ঘটনাস্থল মাস কয়েক আগের কিরগিজস্থান। আয়পেরি আলেকসিভা নামের তরুণী দীর্ঘ দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। কিছু খেতে পারছিলেন না। সেই সঙ্গেই পেটে বেশ ব্যথাও ছিল। অবস্থা যখন রীতিমতো সঙ্গীন হয়ে ওঠে, তখন আয়পেরিকে নিয়ে যাওয়া হয় বিশকেক হাসপাতালে।

হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের প্রধান প্রফেসর বাহাদির বেহেজভ এই প্রসঙ্গে জানান, ‘মেয়েটি যখন আমাদের কাছে আসে, তখনই ওর মরো-মরো অবস্থা। প্রবল জলাভাবে এবং অপুষ্টিতে সে আক্রান্ত। তা ছাড়া তার পেটটাও অস্বাভাবিক রকমের ফুলে ছিল। আমরা সঙ্গে সঙ্গে অপারেশনের সিদ্ধান্ত নিই।’

সেই মতো অপারেশন টেবিলে শুইয়ে কাটা হয় আয়পেরির পেট। কিন্তু পেটের ভিতর থেকে যে এমন অবিশ্বাস্য জিনিস বেরতে পারে, তা স্বপ্নেও ভাবেননি ডাক্তাররা।

আয়পেরির পেট কাটতেই পেটের ভিতর থেকে প্রায় লাফিয়ে বেরিয়ে আসে একটা বিশালাকৃতির চুলের বল। ডাক্তাররা আয়পেরিকে জিজ্ঞাসা করে জানতে পারেন, দীর্ঘ দিন নিজের মাথার চুল এবং মাটিতে পড়ে থাকা চুল তুলে খাওয়ার অভ্যাস রয়েছে তাঁর। খেয়ে ফেলা চুল, বলা বাহুল্য, হজম হয়নি। বরং চুল এবং কার্পেটের সুতো (যেগুলি কার্পেটে পড়ে থাকা চুলের সঙ্গে প্রবেশ করেছিল আয়পেরির পেটে) মিলেমিশে রোগিনীর পেটের ভিতরে ক্রমশ একটা মণ্ডের আকার নেয়।

আয়পেরির পেট থেকে উদ্ধার হওয়া চুলের গোলাটি  ডাক্তাররা ওজন করে দেখেছেন, সেটি ৪ কিলো ভারি। অবশ্য মানুষের পেট থেকে এর থেকেও বড়সড় চুলের গোলা উদ্ধারের ঘটনা ইতিপূর্বে ঘটেছে। ২০০৭ সালে এক আমেরিকান মহিলার পেট থেকে উদ্ধার হয় সাড়ে চার কিলো ওজনের চুলের গোলা। ২০১২ সালে ভারতের এক ১৯ বছরের ছাত্রের পেট থেকেও এ রকম চুলের গোলা বার করেছিলেন ডাক্তাররা। সেটির ওজন ছিল ১.৮ কেজি।

চুল খেয়ে ফেলার অভ্যাস আসলে এক ধরনের মানসিক অসুখ, যার পোশাকি নাম ট্রাইকোফ্যাগিয়া। যদি ঠিক সময়ে চিকিৎসা না হয়, তা হলে ট্রাইকোফ্যাগিয়া ক্রমশ র‌্যাপুনজেল সিনড্রোমের চেহারা নেয়। এই রোগে চুলের বল থেকে একটি লেজের মতো বেরিয়ে আসে, এবং তা ক্ষুদ্রান্ত বরাবর বৃদ্ধি পেতে থাকে।

ডাক্তাররা জানিয়েছেন, অপারেশনের হপ্তাখানেকের মধ্যেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছিলেন আয়পেরি। বর্তমানে নিজের পরিবারের সঙ্গেই রয়েছেন তিনি। মানসিক চিকিৎসার মাধ্যমে চুল খাওয়ার অভ্যাস থেকে তাঁকে মুক্ত করার চেষ্টা চলছে।

নিউজবিডি৭১ডটকম/এম/১০ জানুয়ারি, ২০১৭

image_print
Share.

Comments are closed.