২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সুযোগ পেয়েও লেখাপড়া অর্থাভাবে অনিশ্চিত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সুযোগ পেয়েও লেখাপড়া অর্থাভাবে অনিশ্চিত

0

নিউজবিডি৭১ডটকম
কিশোরগঞ্জ করেসপন্ডেন্ট : ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ে সুযোগ পেয়েও অর্থাভাবে অনিশ্চিত দ্বীন ইসলামের লেখা-পড়া। সে কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার সিদলা ইউনিয়নের টান সিদলা গ্রামের রিকশা চালক চাঁন মিয়ার ছেলে। দ্বীন ইসলাম ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে এ বছর  ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ে ‘ঘ’ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষায় ৭৬ হাজার ৯৮৯ জন পরীক্ষার্থীর মধ্য থেকে সম্মলিত মেধা তালিকায় ৩২৬ হয়েছে। গত ২৮ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হওয়া পরীক্ষার তাঁর রোল নম্বর ছিল ১২৮৬০৭। সে নিজ চেষ্টায় ও শিক্ষকদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় প্রতি দিন বাড়ি থেকেই  হোসেনপুর মডেল পাইলট স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ২০১৪ সালে এসএসসি ও ২০১৬ সালের এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছে।

মেধাবী দ্বীন ইসলামের ইচ্ছা পড়া-লেখা শেষে সমাজের সেবা করা। দ্বীন ইসলামের  বাড়ীতে গেলে তার বাবা চাঁন মিয়া ও মা শরুফা বেগম জানান, ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও  অর্থাভাবে দু’মেয়েকে ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত লেখা-পড়া করিয়ে বিয়ে দিয়েছেন অনেক আগেই, আছমা নামের ছোট মেয়েটি হোসেনপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম শ্রেণীতে এখন লেখা-পড়া করছে। দ্বীন ইসলামের বাবা চাঁন মিয়া ৩০ বছর যাবৎ রিকশা চালিয়ে কোন রকম দিন পার করছেন।

এ অবস্থায় ছেলের লেখা-পড়ার খরচা মিটিয়ে নেওয়া তাঁর পক্ষে সম্ভব নয় বিধায় বেশ দুঃচিন্তায় আছেন।। আগামী ২১ নভেম্বর এর পর এ মাসেই ভর্তি হতে হবে। তাই দ্বীন ইসলামের বাবা-মা সাংবাদিককের মাধ্যমে সমাজের বিত্তশালীদের সহায়তা কামনা করেছেন।

নিউজবিডি৭১/এম/নজরুল ইসলাম/১৭ নভেম্বর, ২০১৬

image_print
Share.

Comments are closed.