মৌলভীবাজারে চারজনের ফাঁসির আদেশ

নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় মৌলভীবাজারের রাজনগর থানার মো. আকমল আলী তালুকদারসহ চারজনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

মঙ্গলবার ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল এ রায় ঘোষণা করেন।

আসামিরা হলেন- আকমল আলী তালুকদার (৭৬), আব্দুর নুর তালুকদার ওরফে লাল মিয়া (৬২), আনিছ মিয়া (৭৬) ও আব্দুল মোছাব্বির।

আসামিদের বিরুদ্ধে আনীত দুটি অভিযোগই আদালতে প্রমাণিত হয়েছে। প্রথম অভিযোগ ৬১ জনকে হত্যায় চারজনের মৃত্যুদণ্ড ও দ্বিতীয় অভিযোগে তাদেরকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

২৭ মার্চ মামলায় যুক্তিতর্ক শেষ হলে রায়ের জন্য অপেক্ষমান (সিএভি) রেখে আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল। ট্রাইব্যুনালে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর হায়দার আলী ও শেখ মুশফেক কবীর। আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী আব্দুস সোবহান তরফদার। এছাড়া পলাতক আসামিদের পক্ষে রাষ্ট্রনিযুক্ত আইনজীবী ছিলেন আবুল হোসেন।

২০১৭ সালের মে মাসে এ মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ (চার্জ) গঠন করেছিলেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। ২০১৬ সালের ২৩ মার্চ আসামিদের বিরুদ্ধে চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা।

আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যা- গণহত্যা, ধর্ষণ, অপহরণ, আটক, নির্যাতন, মরদেহ গুম, লুণ্ঠন ও অগ্নিসংযোগসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের দু’টি অভিযোগ আনা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনে তাদের বিরুদ্ধে আনুমানিক ১০২টি পরিবারের ১৩২টি ঘরে লুটপাট ও অগ্নিসংযোগ, ৬ জনকে ধর্ষণ, ৭ জনকে অপহরণ ও ৬১ জনকে হত্যার অভিযোগ।

একাত্তরের ৭ মে থেকে ২৪ নভেম্বর পর্যন্ত রাজনগর উপজেলার পাঁচগাঁও ও পশ্চিমভাগ গ্রামে তারা এসব মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটন করেছেন বলে অভিযোগে বলা হয়।

২০১৫ সালের ২৬ নভেম্বর ওই চারজনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন ট্রাইব্যুনাল।

ওই দিনই রাজনগর উপজেলার পাঁচগাঁও গ্রাম থেকে আকমল আলীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পরে ট্রাইব্যুনাল তাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেন। তিনি মৌলভীবাজার টাউন সিনিয়র কামিল মাদরাসার অবসরপ্রাপ্ত উপাধ্যক্ষ।

এছাড়া আকমল আলী তালুকদারকে ২০১৫ সালের ২৬ নভেম্বর গ্রেফতার করা হয়। বাকিরা পলাতক রয়েছেন। চারজনই মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর থানার বাসিন্দা।

নিউজবিডি৭১/আ/জুলাই ১৭ ,২০১৮




আত্মহত্যার আগে বিমানবালার ক্ষুদেবার্তা,ওকে ছাড়বে না

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : ভারতের রাজধানী দিল্লিতে নিজের বাড়ি থেকে লাফ দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন ৩২ বছর বয়সী এক বিমানবালা। ছাদ থেকে পড়ে যাওয়া সাথে সাথেই মৃত্যু হয় তার। শুক্রবার বিকাল সাড়ে চারটার দিকে ওই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে।

তবে তার পরিবারের দাবি তিনি আত্মহত্যা করেননি বরং তাকে হত্যা করা হয়েছে। তাদের দাবি অনুযায়ী মৃত্যুর তিনদিন পরে দ্বিতীয়বারের মতো তার মরদেহের ময়নাতদন্ত করেছে পুলিশ। লুফথানসা এয়ারলাইন্সে বিমানবালা হিসেবে কাজ করছিলেন অ্যানিসিয়া বাত্রা।

তার পরিবারের লোকজন অভিযোগ করেছেন যে, অ্যানিসিয়াকে দীর্ঘদিন ধরে যৌতুকের জন্য শারীরিক ও মানসিকভাবে অত্যাচার করে আসছেন তার স্বামী মায়াংক সিংভি। গতমাসে তার পরিবারের সদস্যরা পুলিশের কাছে একটি অভিযোগও দায়ের করেন।

শুক্রবার পঞ্চসেল পার্কের নিজের বাসার ছাদ থেকে অ্যানিসিয়া লাফিয়ে পড়ার পর তার স্বামীর কাছ থেকে ফোন পায় পুলিশ। মায়াংক সিংভির দাবি তার স্ত্রীর একটি ক্ষুদে বার্তা পেয়েই ছাদে ছুটে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেখানে গিয়েও তাকে খুঁজে পাননি। এর কিছুক্ষণ পরেই বাড়ির বাইরে নিচে স্ত্রীর নিথর দেহ দেখতে পান।

মাত্র দু’বছর আগেই বিয়ে করেছিলেন তারা। অ্যানিসিয়ার ভাই জানিয়েছেন, আত্মহত্যার আগে তিনি তার পরিবারের সদস্যদের বেশ কিছু ক্ষুদেবার্তা পাঠিয়েছেন। ক্ষুদেবার্তায় তিনি পুলিশ ডাকতে বলেছেন। তিনি এও বলেছেন যে, মায়াংক তাকে একটি রুমের মধ্যে আটকে রেখেছে। মায়াংকের জন্য আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে উল্লেখ করে অ্যানিসিয়া বলেন, ওকে ছাড়বে না।

পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার বিকালে ওই ঘটনার সময় মায়াংক বাড়িতেই ছিলেন। মৃত্যুর ঠিক আগে তাকে একটি ক্ষুদেবার্তা পাঠান অ্যানিসিয়া। তাতে তিনি লিখেছিলেন, এবার যে কোনও রকমের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলবেন তিনি। ক্ষুদেবার্তা পাঠানোর পরপরই ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন বলে অভিযোগ করেছেন মায়াংক। তার দাবি ছাদ থেকে অ্যানিসিয়ার দেহ নীচে পড়ে থাকতে দেখে তাকে সঙ্গে সঙ্গে হাসপাতালে নিয়ে যান তিনি। সেখানেই তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

নিউজবিডি৭১/এম কে/ জুলাই ১৬ , ২০১৮




যৌনরোগের ভয়ঙ্কর উপসর্গগুলি… দেখে নিন

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : যৌনতা বা যৌনরোগ নিয়ে অকারণ ভীতি, অজ্ঞতা বা সংকোচ বিপদ আরও বাড়িয়ে তোলে। তাই এ সম্পর্কে সম্যক ধারণা থাকা অত্যন্ত জরুরি। যৌনরোগ থেকে ক্যান্সার, অন্ধত্ব, সন্তানের জন্মগত ত্রুটি এমনকি মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। সাম্প্রতিক বেশ কয়েকটি গবেষণায় পাওয়া তথ্য বলছে, পৃথিবী জুড়েই বাড়ছে যৌনরোগের প্রকোপ। প্রতি বছর বিশ্বজুড়ে অন্তত ২ কোটি মানুষ যৌনরোগে আক্রান্ত হন। এদের মধ্যে প্রায় ১ কোটি আক্রান্তের বয়স ১৫ থেকে ২৫ বছরের মধ্যে। আসুন এ সম্পর্কে কিছু জরুরি তথ্য জেনে নিন-

১) এইচপিভি (HPV) বা হিউম্যান প্যাপিলোমা ভাইরাস এমন এক ধরনের ভাইরাস যা যৌন সম্পর্কের মাধ্যমে ছড়ায় এবং বেশ কয়েক ধরনের ক্যান্সারের জন্য দায়ি। অনেকের মধ্যে এই ভাইরাস কোনও উপসর্গ ছাড়াই বছরের পর বছর থাকতে পারে।

নিরাপদ শারীরিক সম্পর্কের জন্য কনডোম ব্যবহারের পরামর্শ দেওয়া হলেও তা ১০০ ভাগ সুরক্ষিত নয়। সাধারণত তরলের মাধ্যমে ছড়ায় এমন সব যৌনরোগ থেকে কনডোম সুরক্ষা দিতে পারে। যেমন, গনোরিয়া, ক্ল্যামাইডিয়া বা এইচআইভি। কিন্তু ত্বকের সংস্পর্শে ছড়ায় এমন সব যৌনরোগ যেমন সিফিলিস, হার্পিস এবং এইচপিভিকে আটকাতে কনডোম তেমন কার্যকরী নয়।

২) অধিকাংশ মানুষেরই ধারণা হল, শুধুমাত্র শারীরিক সম্পর্কের মাধ্যমেই যৌনরোগ ছড়ায়। কিন্তু বাস্তবে যৌনরোগ সম্পর্কে এটি হল সবচেয়ে বড় ভুল ধারণা। হার্পিস বা জেনিটাল ওয়ার্ট ত্বকের সংস্পর্শের মাধ্যমেও ছড়াতে পারে।

৩) নিয়মিত শারীরিক সম্পর্কে জড়িত থাকলে বছরে অন্তত একবার পরীক্ষা করান উচিৎ।

৪) বেশির ভাগ যৌনরোগই উপযুক্ত চিকিৎসায় সম্পূর্ণ সেরে ওঠে। কিন্তু চিকিৎসায় অবহেলা করলে তা ভবিষ্যতে এইচআইভির ঝুঁকি বাড়িয়ে দিতে পারে। বিশেষ করে যাঁদের সিফিলিস, গনোরিয়া বা হার্পিস হয় তাঁদের ক্ষেত্রে এই ঝুঁকি অনেকটাই বেশি।

৫) যৌনাঙ্গ থেকে তরল নিঃসৃত হওয়া, মূত্রে জ্বালা ভাব, শারীরিক সম্পর্কের সময়ে ব্যথা বা রক্তপাত, তলপেটে ব্যথা, মলদ্বার দিয়ে রক্তপাত এবং গলায় সংক্রমণ… এই সব উপসর্গের কোনওটি দেখলে অবশ্যই যৌনরোগের পরীক্ষা করান, চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কারণ, এগুলি যৌনরোগের প্রধান কিছু উপসর্গ।

নিউজবিডি৭১/এম কে/ জুলাই ১৬ , ২০১৮




অবৈধ প্রবাসীদের মালয়েশিয়া ছাড়ার সময় শেষ!

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : নতুন বছরের শুরুতেই প্রবাসীদের উৎকণ্ঠা। মালয়েশিয়ায় অবৈধ শ্রমিকদের স্বদেশে ফেরতের সময় শেষ। ধরা পড়লে জেল জরিমানা। এর ফলে অবৈধদের মাঝে বিরাজ করছে আতঙ্ক। গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় বেধে দিয়েছিল মালয় প্রশাসন।

বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ার পুত্রাযায়া ইমিগ্রেশন অফিসের সামনে দেখা গেছে- ট্রাভেল পাস নিতে বাংলাদেশিদের দীর্ঘ লাইন। কেউ পেয়েছেন আবার কেউ কেউ খালি হাতে ফিরে গেছেন। নরসিংদীর কালাম মালয়েশিয়ায় সাত বছর ধরে রয়েছেন। গত ৬ পির সময় বাংলাদেশি এক এজেন্টের কাছে টাকা পাসপোর্ট দিয়েছিলেন পারমিট করার জন্য। কিন্তু পারমিটতো দূরের কথা টাকা/পাসপোর্ট দুটোই গেলো তার। শুধু কালাম নয় শত শত বাংলাদেশি এমন প্রতারণার শিকার হয়েছেন।

এ সুযোগে অবৈধ শ্রমিকদের বৈধ করার প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারক চক্র হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা। অবশ্য এরইমধ্যে প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিতে এবং জড়িতদের পাকড়াও করতে কঠোর নির্দেশ দিয়েছেন মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

গত এক সপ্তাহ কুয়ালালামপুরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ডেডলাইন ৩১ ডিসেম্বর সামনে রেখে চলছিল অবৈধ শ্রমিক বৈধকরণের ঘোষণা সম্বলিত নানা রঙ, বে-রঙের পোস্টারের ছড়াছড়ি অলিতে-গলিতে। বাংলাদেশি অধ্যুষিত জহুর বারু, পেনাং, মালাক্কা, ক্যামেরুন হাইল্যান্ড, পোর্ট ক্লাং, ক্লাং মেরু, শাহ আলম,ইপু,পেরাক এই ধরনের লোভনীয় পোস্টারের দেখা মিলছে।

মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ অবৈধদের দেশে ফিরতে শেষ বারের মতো সময় বেধে দিলেও তাদের চোখ ফাঁকি দিয়ে বৈধকরণের কথা বলে অর্থ হাতিয়ে নিতে চক্রগুলো প্রচারণায় এখনও ব্যস্ত রয়েছে। নিয়ম অনুযায়ী, ৬পির ভিসার সময়সীমা ছিল তিন বছর। গত বছর আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশ সরকারের অনুরোধে মেয়াদ এক বছর বাড়ানো হয়। এরপর সরকারিভাবে কোনো নির্দেশনা দেয়া হয়নি।

এর মধ্যে মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগ অবৈধদের স্বদেশে ফেরত যেতে ৩১ ডিসেম্বর শেষ সময় বেধে দেয়। মালয় সরকারের এ সিদ্ধান্তের কারণে অবৈধ শ্রমিকরা পড়েছেন বেকায়দায়। তাদের এ দুর্বলতা কাজে লাগিয়ে অর্থ উপার্জনে গজে উঠেছে বিভিন্ন এজেন্ট এবং প্রতারক চক্র। তারা মিথ্যা ঘোষণা দিয়ে শ্রমিকদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। এসব চক্র যেমন অবৈধ শ্রমিকদের বৈধ করার কথা বলছে, তেমনি মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়া শ্রমিকদের মেয়াদ বাড়ানোর জন্য টাকা জমা দেয়ারও কথা বলছে। পোস্টার-লিফলেট ছাপিয়ে প্রচারণা চালিয়েছে।

স্থানীয় প্রশাসন ও সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কয়েক মাস আগেও ইমিগ্রেশন পুলিশ প্রতারণার ব্যাপারে সাবধান করে দেয়। এতেও প্রতারকদের তৎপরতা বন্ধ হয়নি। মালয়েশিয়ার সংবাদ সংস্থা বারনামার একজন সংবাদ কর্মীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত কয়েক বছরে এমন প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে কয়েকশ বাংলাদেশি কোটিপতি হয়েছেন। পুলিশের কাছে এ সংক্রান্ত প্রায় ১০টি মামলা জমা পড়েছে। প্রতারকরা প্রতি শ্রমিকের কাছ থেকে চার হাজার থেকে ৯ হাজার রিংগিত পর্যন্ত হাতিয়ে নিয়েছে।

এদিকে, প্রতারণার খবরে উদ্বিগ্ন হয়ে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জাহিদ হামিদি প্রতারকদের পাকড়াও করার নির্দেশ দিয়েছেন। ২০ ডিসেম্বর ইমিগ্রেশন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ৯৫ শতাংশ অভিবাসী বৈধভাবেই কাজ করতে আসে এবং করতে চায়। তবে তাদের মাঝে কিছু শ্রমিক এজেন্টে রূপান্তরিত হয়েছে, যারা প্রতারণা করছে। পুলিশকে প্রতারক এজেন্ট ও সিন্ডিকেটদের গ্রেফতারে নজর দেয়ার কথা বলেছেন দেশটির উপ-প্রধানমন্ত্রী ও স্বারাষ্ট্রমন্ত্রী জাহিদ হামিদি।

প্রশাসনের নির্দেশনা অনুযায়ী, বৈধ কাগজপত্র ছাড়া মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত শ্রমিকদের সময় ৩১ ডিসেম্বরে শেষ হয়েছে। বিধি লঙ্ঘনকারী কেউ গ্রেফতার হলে তার সর্বোচ্চ পাঁচ হাজার রিংগিত জরিমানা এবং পাঁচ বছর কারাদণ্ডের বিধান করা হয়।

নিউজবিডি৭১/এম কে/ জুলাই ১৬ , ২০১৮




১৩ আগস্ট রাজীবের হাত হারানোর মামলায় প্রতিবেদন

নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : রাজধানীর কারওয়ান বাজারে দুই বাসের রেষারেষিতে তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীব হোসেনের ডান হাত হারানোর মামলায় তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের তারিখ আগামী ১৩ আগস্ট ধার্য করেছেন আদালত।

আজ সোমবার মামলাটির তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ধার্য ছিল। কিন্তু এদিন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহবাগ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আফতাব আলী প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেননি। এজন্য ঢাকা মহানগর হাকিম গোলাম নবী প্রতিবেদন দাখিলের নতুন এ তারিখ ঠিক করেন।

মামলার আসামিরা হলেন-বিআরটিসি বাসের চালক ওয়াহিদ (৩৫) ও স্বজন বাসের চালক খোরশেদ (৫০)। গত ৫ এপ্রিল এ দুই আসামির দুইদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। রিমান্ড শেষে ৮ এপ্রিল তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন আদালত। এরপর থেকে তারা কারাগারেই রয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত ৩ এপ্রিল বিআরটিসির একটি দোতলা বাসের পেছনের ফটকে দাঁড়িয়ে গন্তব্যে যাচ্ছিলেন রাজধানীর মহাখালীর সরকারি তিতুমীর কলেজের স্নাতকের (বাণিজ্য) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র রাজীব হোসেন (২১)। হাতটি বেরিয়েছিল সামান্য বাইরে। হঠাৎ পেছন থেকে স্বজন পরিবহনের একটি বাস বিআরটিসির বাসটিকে গাঁ ঘেষে ওভারটেক করার সময় রাজীবের ডান হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। দু-তিনজন পথচারী দ্রুত তাকে পান্থপথের শমরিতা হাসপাতালে নিয়ে যান। কিন্তু চিকিৎসকেরা চেষ্টা করেও বিচ্ছিন্ন হাতটি রাজীবের শরীরে আর জুড়ে দিতে পারেননি। গত ১৬ এপ্রিল দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রাজীব।

নিউজবিডি৭১/আ/জুলাই ১৬ ,২০১৮




মালয়েশিয়ায় প্রতারকদের ফাঁদে অসহায় প্রবাসী বাংলাদেশিরা

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : মালয়েশিয়ায় প্রতিনিয়ত প্রতারণার শিকার হচ্ছেন অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি। ২০১৬ সাল থেকে অবৈধ প্রবাসীদের বৈধ হওয়ার সুযোগ দেয় মালয়েশিয়া। ধাপে-ধাপে সময় বাড়িয়ে দীর্ঘ আড়াই বছর ধরে চলে এই বৈধকরণ প্রক্রিয়া। শেষ হয় চলতি বছরের ৩০ জুন। কিন্তু এই আড়াই বছরে দেশটিতে বৈধ হওয়ার সুযোগ নিতে গিয়ে প্রতিনিয়ত প্রতারকদের ফাঁদে পড়েছেন অসহায় প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

বৈধ করে দেওয়ার নামে অবৈধ কর্মীদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে উধাও হয়েছে অনেক প্রতারকচক্র। বৈধ হওয়ার জন্য প্রতারকদের হাতে টাকা-পয়সা ও পাসপোর্ট তুলে দিয়েও কপালে জোটেনি বৈধতা। মালয়েশিয়ায় এমন অবৈধ প্রবাসী বাংলাদেশির সংখ্যা ৫০ হাজারেরও বেশি। তাঁরা বর্তমানে ইমিগ্রেশন এবং পুলিশের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

জানা গেছে, মালয়েশিয়া সরকার অবৈধ কর্মীদের বৈধ করার জন্য দু’টি প্রোগ্রাম চালু রেখেছিলো। এর একটি রি-হায়ারিং প্রোগ্রাম, অন্যটি ই-কার্ড। এই দু’টি প্রোগ্রামকে ঘিরে দেশটিতে গড়ে ওঠে শক্তিশালী একাধিক প্রতারকচক্র। বৈধ হওয়া এবং কাজ পাওয়ার জন্য এই চক্রকে টাকা দিয়ে টিকে থাকতে হয় বাংলাদেশি কর্মীদের। বৈধ করে দেওয়ার নামে জনপ্রতি ৫ থেকে ১০ হাজার রিংগিত হাতিয়ে নিয়েছে চক্রগুলো।

মালয়েশিয়া প্রবাসী শ্রমিক আশরাফ উদ্দিন বলেন, ১০ হাজারের বেশি বাংলাদেশি প্রতারকচক্র দেশটিতে কর্মী কিনছে এবং বিক্রি করছে। প্রতারকরা কখনো হাই-কমিশনের নামে, কখনো পুলিশের হাত থেকে রক্ষা করে দেওয়ার নামে, কখনো বৈধ করে দেওয়ার কথা বলে কর্মীদের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ আদায় করছে। তিনি বলেন, প্রবাসী শ্রমিকেরা কোনোভাবেই মুক্তি পাচ্ছেন না প্রতারকচক্রের হাত থেকে। বরং বাধ্য হচ্ছেন এই চক্রের কথামতো চলতে।

মালয়েশিয়ায় বৈধতার আবেদনের জন্য প্রত্যেক অবৈধ কর্মীকে সরকারিভাবে ১২ শ’ রিংগিত জমা দিতে হতো। কিন্তু প্রতারকচক্রের ফাঁদে পড়ে অনেক বাংলাদেশি বিপুল পরিমাণ অর্থ দিয়েও বৈধ হওয়ার সুযোগ পাননি।

মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরের একটি কারখানায় কাজ করেন রংপুরের মিঠাপুকুর থানার আজমাল হোসেন। ২০১৩ সালের কলিং ভিসায় মালয়েশিয়ায় যান তিনি। ভিসার মেয়াদ শেষে বর্তমানে অবৈধভাবে বসবাস করছেন। আজমাল হোসেন বৈধতার জন্য যোগাযোগ করেন শরীয়তপুরের আক্তার মোল্লার সংগে। আক্তারও দীর্ঘদিন ধরে মালয়েশিয়ায় বাস করেন।

নিজের বৈধ হওয়ার বিষয়ে আজমাল হোসেন বলেন, রি-হায়ারিং করে দেওয়ার নামে আক্তার তাঁর কাছ থেকে দু’দফায় ২০ হাজার রিংগিত নিয়েছেন। আজমাল হোসেন অভিযোগ করেন, এতো টাকা নিয়েও আক্তার মোল্লা তাঁকে বৈধতার কোনো কাগজ দিতে পারেনি। বর্তমানে তিনি অবৈধ হয়ে দেশটিতে বসবাস করছেন। তিনি বলেন, এখন বৈধ হওয়ার কোনো সুযোগ নেই। অথচ চড়াসুদে ঋণ করে মালয়েশিয়ায় গেছেন তিনি। এই অবস্থায় কোনোভাবেই দেশে ফেরাও সম্ভব নয় বলে জানান তিনি।

এদিকে, মালয়েশিয়া সরকার পহেলা জুলাই থেকে মেগা-থ্রি নামে অভিযান শুরু করেছে। যেখানেই অভিযান পরিচালিত হচ্ছে, সেখানেই আটক হচ্ছেন অবৈধরা। আটকের পর অবৈধদের কাছ থেকে তথ্য নিয়ে এবং তাঁদের অভিযোগের ভিত্তিতে বাংলাদেশি, পাকিস্তানি, ইন্ডিয়ান ও মালয়েশিয়ান প্রায় ১শ’ জন প্রতারক এজেন্টের তালিকা তৈরি করেছে মালয় অভিবাসন বিভাগ। মেগা-থ্রি অভিযানের পাশাপাশি এসব প্রতারককে ধরতে গোপনে কাজ করছে দেশটির স্পেশাল বিভাগ। এমনকি মালয়েশিয়ায় মানবপাচারের সংগে জড়িত দালাল থেকে শুরু করে পুরো সিন্ডিকেট ধরতে মাঠে নেমেছে ইমিগ্রেশন বিভাগ।

গত ১০ জুলাই বাংলাদেশি দালাল চক্রের একটি অফিস থেকে ৬৬ জনকে উদ্ধার করেছে ইমিগ্রেশনের স্পেশাল ব্রাঞ্চ। এ সময় অফিসটিতে কর্মরত ১১ জন বাংলাদেশি ও দু’জন মালয়েশিয়ান নাগরিককেও গ্রেফতার করা হয়।

ইমিগ্রেশন বিভাগের মহাপরিচালক দাতুক সেরি মোস্তাফার আলী জানান, দীর্ঘদিন ধরে মালয়েশিয়াকে ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার করে অবৈধ শ্রমিক আমদানি করে মালয়েশিয়ার বিভিন্ন কলকারখানায় সাপ্লাই করতো সিন্ডিকেট গ্রুপটি। তিনি জানান, বিভিন্ন দেশ থেকে অবৈধভাবে শ্রমিক এনে ট্রানজিট রুট হিসেবে ব্যবহার করে মালয়েশিয়ার প্রত্যন্ত অঞ্চলে সাপ্লাই করা হতো। আটকদের অভিবাসন আইন ১৯৫৯/৬৩, ১৯৬৬, ১৬৩ অনুযায়ী গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, মালয়েশিয়ায় অনেক বিদেশি বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই বিভিন্ন শিল্প-কারখানায় কাজ করছেন। কর্মরত বিদেশি কর্মীদের ২৯ দশমিক ৪ শতাংশ ইন্দোনেশিয়ার, ২৩ দশমিক ৬ শতাংশ নেপালের, ১৪ দশমিক ৩ শতাংশ বাংলাদেশের, ৬ দশমিক ৯ শতাংশ, মায়ানমারের, ৫ দশমিক ১ শতাংশ ভারতের, ৩ দশমিক ১ শতাংশ ফিলিপাইনের, ২ দশমিক ৫ শতাংশ পাকিস্তানের, শূন্য দশমিক ৬ শতাংশ থাইল্যান্ডের এবং ৪ দশমিক অন্য দেশের। তথ্যসূত্র: ভয়েস বাংলা

নিউজবিডি৭১/এম কে/ জুলাই ১৬ , ২০১৮




শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ ২৭ জুলাই !

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : আগামী ২৭ জুলাই পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ হবে যা দেখা যাবে এক ঘন্টা ৪৩ মিনিট ধরে। এই শতাব্দীতে এটিই দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ বলেও জানা গেছে। ২৭ জুলাই রাত ১১টা ৫৪ মিনিটে শুরু হবে আংশিক চন্দ্রগ্রহণ। পৃথিবীর ছায়ায় আস্তে আস্তে চাঁদ ঢাকা পড়া শুরু হবে তখনই। রাত ১টায় পুরোপুরি ঢেকে যাবে চাঁদ। শুরু হবে পূর্ণগ্রহণ।

পূর্ণগ্রহণ অবস্থায় চাঁদ থাকবে আরো এক ঘন্টা ৪৩ মিনিট। রাত ২টা ৪৩ মিনিট পর্যন্ত। এরপর আবার চাঁদের গায়ে পড়তে শুরু করবে সূর্যের আলো। আবারো শুরু হবে আংশিক গ্রহণ। ভোর ৩টা ৪৯ মিনিটে শেষ হবে গ্রহণ।

বর্ষার জন্য আকাশ মেঘলা থাকলে দেখা যাবে না পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ, সেই আশঙ্কা করছেন অনেকেই। তবে, গ্রহণ চলবে দীর্ঘক্ষণ। তাই কোনো না কোনো সময় আকাশ পরিষ্কার হবে, সেই আশাতেই হয়ত রাতভর আকাশপানে চেয়ে থাকবেন অনেকেই।

চন্দ্রগ্রহণ ছাড়াও এ মাসেই সৌরজগতের আরো একটি ঘটনা দেখা যেতে পারে। মঙ্গলের অবস্থান হবে সূর্য ও পৃথিবীর মাঝে। অর্থাৎ পৃথিবীর খুব কাছেই আসবে লাল গ্রহ মঙ্গল। জুলাইয়ের শেষ সপ্তাহে বিকেল থেকে ভোর পর্যন্ত খালি চোখেই দেখা যাবে মঙ্গল গ্রহ।

নিউজবিডি৭১/এম কে/ জুলাই ১৬ , ২০১৮




পূবালী ব্যাংকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : পূবালী ব্যাংকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

Job Description: Pubali Bank Ltd Job Circular job recruiting position is Principal Officer/Senior Principal Officer. This job position is talented personnel recruiting in the Pubali Bank Ltd.

Job Nature: Full-time

Education Qualification: See Job Circular.

Job Experience: Nil.

Gender: Both (Male & Female)

Compensation and Benefit: See Job Circular.

Job Location: Anywhere in Bangladesh

Age Limit: 30 and 32 years

Application Deadline: July 31, 2018, & August 30, 2018

বিস্তারিত নিচের বিজ্ঞাপনে

নিউজবিডি৭১/এম কে/ জুলাই ১৬ , ২০১৮




বসুন্ধারা গ্রুপে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : বসুন্ধারা গ্রুপে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

Job Position: Executive/ Sr.Executive (HR & Admin)

Job Description / Responsibility

Responsible for timely recruitment & selection process at plant as per manpower planning.
Responsible for maintenance of employee personal file, HRIS, attendance, payroll, allowances, employee welfare, transport management etc.
Responsible for monitoring & ensure strict compliance of all HR and Admin related policies and procedures across the plant.
Responsible for arrange and coordinate official meetings at plant site and ensure the distribution of meeting minutes.
Responsible to look after Industrial and Employee Relations affairs, including staff discipline, grievances and other related activities.
Responsible to ease the movement and accommodations of Foreigners and guest.
Ensure all policies are complied with Labor Laws and Company Rules & Regulations.
Maintain close contact & effective liaison with various stakeholders regarding company interest.
Other duties & responsibilities related to plant administration as & when required.
Job Nature

Full Time

Educational Requirements

MBA in HRM/ Masters with PGDHRM from any reputed University.

Experience Requirements

3 to 6 year(s)

Job Requirements

Only males are allowed to apply
Applicants must be willing to work at Plant Site.
Ability to manage large number of workforce.
Knowledge in all facets of HR and Admin functions.
Well conversant with labor law.
Computer Literate.
Gender: Male
Age: At most 32 year(s)

Job Location

Narayanganj

Salary Range

Negotiable

Other Benefits

Leave Encashment, Pick/Drop facility etc. as per company policy.

Apply Instructions
Interested applicants are requested to send their resume to Human Resources Division, Bashundhara Paper Mills Ltd., Bashundhara Group, Bashundhara Industrial Headquarters-2, Plot-56/A, Block-C, Umme Kulsum Road, Bashundhara R/A, Dhaka-1229.

Application Deadline: Jul 20, 2018

নিউজবিডি৭১/এম কে/ জুলাই ১৬ , ২০১৮




খালেদার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন

নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : মানহানির একটি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করা
হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও আওয়ামী লীগকে নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করার অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়।

আজ সোমবার ঢাকা মহানগর হাকিম আবু সাঈদের আদালতে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেন মামলার বাদী
বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদের সভাপতি এ বি সিদ্দিকী।

এ বি সিদ্দিকী বলেন, মামলাটিতে গত ৩০ জুন অভিযোগের বিষয়ে সত্যতা পাওয়া গেছে মর্মে প্রতিবেদন দাখিল করেন
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহবাগ থানার ওসি (তদন্ত) জাফর আলী।

আজ মামলাটির ধার্য তারিখ রয়েছে। আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আবেদন করেছি। আজই এ বিষয়ে শুনানি
হতে পারে। গত ১১ জুলাই মানহানির একটি মামলায় খালেদা জিয়া এবং গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের বিরুদ্ধে একই আদালত পুলিশের
দেওয়া প্রতিবেদন আমলে নিয়ে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

ওই মামলার বাদীও এবি সিদ্দিকী। গত বছরের ২৫ জানুয়ারি আদালতে মামলাটি করেন বাংলাদেশ জননেত্রী পরিষদের
সভাপতি এ বি সিদ্দিক। ওই দিন আদালত শাহবাগ থানা পুলিশকে অভিযোগের বিষয় তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ
দেন। ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে এক অনুষ্ঠানে খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর
রহমান ও আওয়ামী লীগকে নিয় বিতর্কীত মন্তব্য করেন।

নিউজবিডি৭১/আ/জুলাই ১৬ ,২০১৮




প্রেমিকাকে ভিডিও কলে রেখে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রের লাইভ আত্মহত্যা

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : প্রযুক্তি যেমন এনে দিয়েছে অনেক সুবিধা তেমনি এর ব্যবহারের উপরে নির্ভর করে সুফল আর কুফল। অষ্টম শ্রেণিতে পড়ুয়া প্রেমিকাকে হোয়াটস অ্যাপে ভিডিও কল করে আত্মহত্যা করল দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র।ভারতের পশ্চিমবঙ্গের সোনারপুর এলাকা এ আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে। অন্য দিনের মতো বুধবার রাতেও প্রেমিকের সঙ্গে ফোনে কথা বলছিল। হঠাৎই কথা কাটাকাটি। ফোন রেখে দেয় প্রেমিক। বার বার ফোন করতে থাকে ওই ছাত্রী। কিছু সময় পরেই কিশোরীর ফোনটা বেজে ওঠে।

এ বার ভিডিও কল। ফোনটা রিসিভ করেই দেখে গলায় দড়ির ফাঁস দিয়ে, সিলিং ফ্যানের সঙ্গে দড়ির অন্য প্রান্ত বেঁধে দাঁড়িয়ে আছে প্রেমিক। ফোনে অনুনয় করে কিশোরী, কিন্তু তাতে কান দেয় না কিশোর। কোনও উপায় না দেখে ওই কিশোরের বন্ধুদের ঘটনা জানায় সে। বন্ধুরা পুলিশকে জানিয়ে, দ্রুত পৌঁছায় কিশোরের বাড়ি। কিন্তু ততক্ষণে সব শেষ। কিশোরের প্রাণহীন ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সোনারপুর থানা এলাকার শালেপুরের বাসিন্দা সুরজ রায়। স্থানীয় পদ্মপুকুর হাইস্কুলের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র সে। পুলিশকে তার বন্ধুরা জানিয়েছে, কয়েক মাস আগেই সোনারপুরের কামরাবাদ হাইস্কুলের অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে সুরজের আলাপ। সেখান থেকেই ঘনিষ্ঠতা। রোজই বেশ কয়েক ঘণ্টা তারা ফোনে কথা বলত, ভিডওে চ্যাটও করত। সুরজের বাবা বেশ কয়েক বছর আগেই মারা গেছেন। মা শম্পা সংসার চালান। তার অভিযোগ, ওই কিশোরীর প্ররোচনাতেই আত্মহত্যা করেছে তার ছেলে। তিনি সোনারপুর থানায় কিশোরীর বিরুদ্ধে অভিযোগও দায়ের করেছেন।

নিউজবিডি৭১/এম কে/১৬ জুলাই, ২০১৮




৪৭ সেকেন্ডের পথের জন্য চড়তে হয় বিমানে!

ডেস্ক রিপোর্ট
নিউজবিডি৭১ডটকম
ঢাকা : বর্তমানে বিশ্বে দীর্ঘ পথ চলে কাতার এয়ারওয়েজ। নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ড থেকে কাতারের দোহা পর্যন্ত এ ফ্লাইটে সময় লাগে ১৭ ঘণ্টা! তবে আগামী অক্টোবর মাসে এ রেকর্ডকে ছাড়িয়ে যাবে সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্স। সিঙ্গাপুর থেকে আমেরিকার নিউজার্সি পর্যন্ত কোনো বিরতি ছাড়াই একটানা ১৯ ঘণ্টা ফ্লাইট চালনার ঘোষণা দিয়েছে দেশটি!

প্রশ্ন হলো দীর্ঘ ফ্লাইটের কথা না হয় জানা গেলো, কিন্তু সংক্ষিপ্ত ফ্লাইটের ব্যাপ্তি কত? এ প্রশ্নের অবাক করা উত্তর হল, মাত্র ৪৭ সেকেন্ড!

হ্যাঁ, আপনি সত্যিই শুনছেন। বিশ্বের সবচেয়ে সংক্ষিপ্ত যাত্রীবাহী এ বিমানের ফ্লাইট চলে স্কটল্যান্ডে। ১৯৬৭ সাল থেকে দুটি দ্বীপের মধ্যে এ ফ্লাইট চালনা হয়।

এ বিমানে আসন রয়েছে মাত্র ৮টি। প্রতিদিন দুইটি করে এ বিমানের ফ্লাইট থাকে। ২.৭ কিলোমিটার দীর্ঘ এ ভ্রমণে ফিরতি টিকেটের জন্যে খরচ হয় ২১ পাউন্ড। স্কুল, দাঁতের ডাক্তার কিংবা বাজার করতে যাওয়ার জন্যে স্থানীয়রা এই ফ্লাইট ব্যবহার করেন। ফলে এই লেখা পড়তে পড়তে আপনার যতটুকু সময় পার হয়ে গেছে তার আগেই বিমানটি তার গন্তব্যে পৌঁছে গেছে!

নিউজবিডি৭১/এম কে/১৬ জুলাই, ২০১৮